এই মাত্র পাওয়া :

মারমা সম্প্রদায় তাদের বর্ষবরণ উৎসব “সাংগ্রাই” এর জলকেলীতে মেতে উঠেছে


প্রকাশের সময় :১৫ এপ্রিল, ২০১৭ ৮:১১ : অপরাহ্ণ 807 Views

সিএইচটি টাইমস নিউজ ডেস্কঃ-বর্ষবরণ সাংগ্রাই এর জলকেলি উৎসবে মেতেছে বান্দরবানের মারমা সম্প্রদায়।এটি এখন শুধু মারমাদেরই না এই উৎসব এখন সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে।পুরো শহরজুড়ে চলছে পানি খেলা।শিশু থেকে শুরু করে তরুণ-তরুণী এমনকি বয়স্করাও একে অপরের গায়ে পানি ঢেলে নতুন বছরকে বরণ করে নিয়েছেন।উৎসবে যোগ দিয়েছে দেশি-বিদেশি পর্যটক।আনন্দ উদ্দীপনা আর সাংস্কৃতিক বৈচিত্রে বর্ণিল হয়ে উঠেছে বান্দরবান শহর।সাংগ্রাই উপলক্ষে শহরের রাজবাড়ি মাঠে একদিকে চলছে তরুণ-তরুণীদের জলকেলি উৎসব আর অন্যদিকে মঞ্চে চলছে সাংগ্রাই এর ঐতিহ্যবাহী গান ‘সাংগ্রাইয়ে মা ঞি ঞি ঞায়া রিকযাই গে পা মে’ শহরের রাজার মাঠে শনিবার বিকেলে যখন জলকেলি উৎসব শুরু হয় তখন সবার মুখে মুখে ফিরছিল মারমা গানের এই সুরের মূর্ছনা। মারমা সম্প্রদায়ের বর্ষবরণ সাংগ্রাই উৎসবের অন্যতম আয়োজন জলকেলি বা পানি খেলা শুরু হয়েছে শনিবার থেকে।উৎসব উপলক্ষে রাজার মাঠে ছিল বিশাল আয়োজন।সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আর দল বেঁধে পানি খেলা প্রতিযোগিতা।নেচে গেয়ে আনন্দ উৎসবে নানা রং এর পোশাক পরে সাংগ্রাই পালন করে মারমা সম্প্রদায়। উৎসবে শুধু মারমারাই নয় নানা সম্প্রদায়ের লোকজনও অংশ নেয়।সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য জায়গা বান্দরবান।প্রতিটি উৎসবেই নানা সম্প্রদায়ের লোকজন একত্রিত ভাবে অংশ নিয়ে উৎসব উদযাপন করে। এবারও সাংগ্রাই উৎসবে এই সম্প্রীতির কোন কমতি ছিলনা।পাহাড়ী বাঙ্গালী সবাই এক সাথে মেতে উঠে পানি খেলায়।বিকেলে পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি ও স্থানিয় সরকার সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা সাংগ্রাই এর জলকেলি উৎসবের সূচনা করেন।এ সময় অনুষ্ঠানে সেনা রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল যুবায়ের সালেহীন,জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক,পুলিশ সুপার সজ্ঞিত কুমার রায়,জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা শহিদুল আলমসহ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।পরে রাজার মাঠের মৈত্রি পানি বর্ষণ মঞ্চে মার্মা তরুণ-তরুণীরা মেতে উঠে জলকেলি উৎসবে।বিভিন্ন পাড়ার তরুণ-তরুণীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।নানা রঙ্গে নানা সাজে সেজে তরুণীরা মেতে ওঠেন উৎসবে।শুধু তরুনরাই নয় শিশু থেকে শুরু করে বয়স্করাও পানি খেলায় অংশ নেয়।মারমাদের বিশ্বাস স্বচ্ছ পানির ধারা ধুয়ে মুছে দিবে পুরনো বছরের যত দুঃখ-গ্লানি বেদনা।আর বরণ করে নেওয়া হবে নতুন বছরকে।এই বিশ্বসেই একে অপরের গায়ে পানি ছিটিয়ে দেওয়া হয় বর্ষবরণে।গতকাল সকাল থেকেই ছিল উৎসবের নানা আয়োজন।বৌদ্ধ মন্দিরে ভিক্ষুদের জন্য নানা প্রকারের উৎকৃষ্ট খাবার (ছোয়াইং) উৎসর্গ করা হয়।শুধু মারমারাই নয় এবার চিম্বুকের ভাইট্টা পাড়া এলাকায় বর্নাঢ্য আয়োজনে বর্ষবরণ চাংক্রান পালন করেছে।ত্রিপুরাও নেচে গেয়ে পালন করেছে বৈসুক।এছাড়া চাকমাদের বিজু আর তঞ্চঙ্গ্যাদের বিষুতেও ছিল আলাদা আলাদা আয়োজন।আজ রবিবার চিম্বুক পাহাড়ের খুশি পাড়ায় অনুষ্ঠিত হবে খুমি সম্প্রদায়ের বর্ষবরণ উৎসব।বর্ষবরণ নিয়ে পাহাড়ি বাঙালির সম্প্রীতির উৎসব মুখর হয়ে উঠেছে বান্দরবান।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
December 2022
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!