এই মাত্র পাওয়া :

বান্দরবান শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর দ্বিতীয় সভা অনুষ্ঠিত


প্রকাশের সময় :২৮ জুলাই, ২০১৭ ৩:৩৯ : পূর্বাহ্ণ 789 Views

সিএইচটি টাইমস নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবান শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে বান্দরবানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সামগ্রিক কার্যক্রম ও পরিকল্পনা গ্রহণ সংক্রান্ত দ্বিতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।গতকাল বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই) সন্ধ্যা ৭ টায় ভেনাস রিসোর্ট সম্মেলন কক্ষে শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।এসময় বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর কো-চেয়ারম্যান বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা,পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সুদত্ত চাকমা,চট্টগ্রাম বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মুমিনুর রশীদ আমিন।শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন সদস্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞানের ডীন ফরিদ উদ্দিন,চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক নসরুল্লাহ বাহাদুর,সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার সরোয়ার জাহান,আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য কাজল কান্তি দাশ,বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ,বান্দরবান পৌর মেয়র মোঃইসলাম বেবী,বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষীপদ দাশ,মোজাম্মেল হক বাহাদুর,অমল কান্তি দাশ,মাহবুবুর রহমান,উজ্জ্বল কান্তি দাশ,মোঃইসলাম কোম্পানি,মং থোয়াই চিং হ্যাঁডমেন,সুমন পাল প্রমুখ।বৈঠকের সার্বিক বিষয়াবলী সঞ্চালনা করেন শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন এর সদস্য সচিব ও জেলা পরিষদ বান্দরবানের নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল আবসার।বৈঠকে ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয় এর আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয় এর জন্য নির্ধারণ করা অস্থায়ী ক্যাম্পাস প্যারাডাইস ভবনের নাম পরিবর্তন করে রোয়াদো হাইটস করা হয়।রোয়াদো হাইটসের ২য়,৩য়,৪র্থ
তলার তিনটি ফ্লোরে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করা হবে।যদিও বিশ্ববিদ্যালয় এর স্থায়ী ক্যাম্পাসটি গড়ে উঠবে বান্দরবানের প্রবেশ মুখ খ্যাত সুয়ালক ইউনিয়নের হলুদিয়া ও সুয়ালক বাজারের মধ্যবর্তী একটি জায়গায়।এবিষয়ে শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন সদস্য লক্ষীপদ দাশ জানান ৩১৪ নং সুয়ালক মৌজায় বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে ১০০ একর খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদানের জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কতৃক অনুমোদন পাওয়া গেছে।খুব শিঘ্রই জমির কবুলিয়ত ও জমাবন্দী ফাউন্ডেশন বুঝে পাবে।এর পরপরই বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় এর স্থায়ী ক্যাম্পাসের অবকাঠামোগত উন্নয়ন কার্যক্রম শুরু করা হবে।এসময় তিনি আরও বলেন, শিক্ষা ও উন্নয়ন ফাউন্ডেশন চেয়ারম্যান পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বৈঠকে ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী বিনামূল্যে পড়ার সুযোগ পাবে।তাদের মধ্যে ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান,বাকী ৫ শতাংশ গরীব এবং মেধাবী শিক্ষার্থীরা।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
December 2022
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!