শিরোনাম: বাজার এলাকায় শৃঙ্খলা নিশ্চিতে ব্যবসায়ীদের ঐক্যের কোন বিকল্প নেইঃ বীর বাহাদুর উশৈসিং উপেন্দ্র লাল দাশ এবং মাতা শৈলবালা দাশ এর প্রয়াণ দিবসে শুরু হলো তিনদিনব্যাপী ভজন কীর্ত্তন,ধর্মসম্মিলন ও মহানামযজ্ঞ বান্দরবান সেনা জোনের শিক্ষা সহায়ক সামগ্রী উপহার পেয়ে খুশি দূর্গম ক্যাপলং পাড়া’র শিক্ষার্থীরা রোয়াংছড়িতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট উপহার “হার পাওয়ার” প্রকল্পের ল্যাপটপ বিতরণ স্মার্ট বান্দরবান-স্মার্ট ক্রীড়াঙ্গনঃ বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় আন্তঃ বিভাগ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট এর ট্রফি হস্তান্তর ও জিডিএস বিভাগের জার্সি উন্মোচন বান্দরবানে ধর্ষনের দায়ে ১ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড রুমা উপজেলায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ১ ৪০ হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধার করলো ২ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন

জেলা প্রশাসকের ইফতার সামগ্রী পেয়ে বৃদ্ধার মুখে হাসি


নিজস্ব সংবাদদাতা প্রকাশের সময় :৪ এপ্রিল, ২০২২ ১০:৪১ : অপরাহ্ণ 233 Views

বান্দরবানে যোগদানের পর থেকেই জনসম্পৃক্ত নানা সিদ্ধান্ত,নানা উদ্যোগ আর নানা মানবিক চিন্তা ভাবনার সফল বাস্তবায়ন করে প্রশংসিত হয়েছেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি।গত এক বছরে বান্দরবানের জনসাধারণ অবাক বিস্ময়ে দেখলো একজন জেলা প্রশাসক কতটা উদার হতে পারেন,কতটা ন্যায় নিষ্ঠ হতে পারেন,কতটা সারল্য থাকতে পারে,কতটা দেশপ্রেম আর উদ্ভাবনী মেধায় বলিয়ান হতে পারেন।তিনি শুধু বান্দরবান জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তা কিন্তু নয়,তিনি তাঁর বিচক্ষণ সিদ্ধান্ত দিয়ে জনসাধারণের প্রাণকেন্দ্র বান্দরবান জেলা প্রশাসন কে দেশজুড়ে পরিচিতি দিয়েছেন বান্দরবান জেলা প্রশাসন একটি জনবান্ধব জেলা প্রশাসন।যেখানে সাধারণ মানুষ প্রতিদিনই নির্ভয়ে শুধু মাত্র একটি শব্দ ব্যয় করে স্বয়ং জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি’র সাথে সরাসরি সাক্ষাৎ করছেন।নিজের সমস্যা নিয়ে জানানোর পর জেলা প্রশাসক তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত দিচ্ছেন আর উপকৃত হচ্ছে জনসাধারণ।কলাপাতা থেকে সুতা উদ্ভাবন,গণশুনানিতে অংশগ্রহণ,জেলার পর্যটন এবং পর্যটকদের নিয়ে বিশেষ চিন্তাভাবনা+ উদ্যোগ এবং সর্বোপরি মাতৃছায়া+ব্রান্ডিং বান্দরবান এককথায় প্রতিটি সেক্টরে জেলা প্রশাসক এর উজ্জ্বল উপস্থিতি এককথায় অনবদ্য।বর্তমান জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বান্দরবানে কর্মরত নতুন প্রজন্মের সাংবাদিকদের মনের গভীরে উপলব্ধি জাগ্রত করেছেন সাংবাদিকরা শুধু রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভই নয়,সাংবাদিকরা সমাজের তৃতীয় চোখ।বান্দরবান জেলার নতুন প্রজন্মের সাংবাদিকরা এখন মনেপ্রানে এই বিশ্বাস লালন করে।তিনি শুধু জেলা প্রশাসকই নয় একজন মানবিক মানুষ হিসেবেও তিনি আলোকিত।গরীব ও অসহায়দের বিভিন্ন বক্তব্য শুনে তিনি তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত দিয়ে ব্যবস্থা নিয়েছেন।গত শীত মৌসুমের শুরুতেই গরীব ও অসহায়দের কষ্টের কথা শুনে রাত বিরাতে তিনি ছুটে গিয়েছেন জেলার বিভিন্ন দুর্গম পাড়া মহল্লায় আর শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন অসহায়দের মাঝে।পবিত্র মাহে রমজানের এমন দিনেও তিনি বসে নেই।ঠিকই তিনি তাঁর মানবিক সিদ্ধান্তের জায়গা থেকে নিজস্ব অর্থায়নে বিতরণ শুরু করেছেন ইফতার সামগ্রী।সোমবার (৪ এপ্রিল) রমজানের দ্বিতীয় দিনেই বান্দরবান সদর উপজেলার চড়ুইপাড়ার ৭০ টি গরীব ও দুঃস্থ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।বান্দরবান জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব কুমার বিশ্বাস জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি’র পক্ষে এই ইফতার গরীব দুঃস্থ মানুষের হাতে তুলে দেন।এবিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিব কুমার বিশ্বাস বলেন,পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি”র নিজস্ব উদ্যোগ এবং নিজের অর্থায়নে চড়ুইপাড়ার ৭০ টি গরীব ও দুঃস্থ মুসলিম পরিবারের সদস্যদের প্রতিটি পরিবারকে ইফতার সামগ্রী হিসেবে ২ কেজি ছোলা,১ কেজি চিনি,১ কেজি সেমাই,১ কেজি বুট,১ কেজি চিড়া,২৫০ গ্রাম গুড়াদুধ,১/২ কেজি মুড়ির বিতরণ করা হয়েছে।পবিত্র এই রমজান মাসে গরীব ও দুঃস্থ মুসলিম পরিবারের সদস্যদের মাঝে মানবিক এই ইফতার সামগ্রী উপহারের সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে।এবিষয়ে গরীব ও অসহায়রা জেলা প্রশাসকের ইফতার সামগ্রী উপহার পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে বলেন,পূর্বে কোন জেলা প্রশাসক কিংবা জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি এইভাবে সরাসরি আমাদের বাড়ী বাড়ী এসে আমাদের খবর নেয়নি এবং ইফতার সামগ্রীও দেয়নি,বর্তমান জেলা প্রশাসক শুধু একজন প্রশাসকই নন,একজন মানবিক কর্মকর্তাও বলতে হবে।বান্দরবানের কুহালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মংপু মার্মা বলেন,বর্তমান জেলা প্রশাসক আমাদের চেয়ে আমাদের ইউনিয়নের বিভিন্ন বাসিন্দাদের আমাদের চেয়ে আরো বেশি ভালো ভাবে চেনেন এবং খোঁজ খবর নিয়ে সরাসরি বিভিন্ন মানবিক সহায়তা পাঠিয়ে দেন।এই ধরণের কর্মকর্তা প্রশাসনে থাকলে অবশ্যই দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।সার্বিক বিষয়ে, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (আরডিসি) মো.কায়েসুর রহমান বলেন,জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি সরকারি কাজগুলো সঠিকভাবে বাস্তবায়নের পাশাপাশি নিজ উদ্যোগ এবং অর্থায়নে সাধারণ গরীব ও অসহায় মানুষের পাশে নিয়মিত অবস্থান করার চেষ্টা করেন।রোয়াংছড়ির শারীরিক প্রতিবন্ধী আব্দুল মোনাফ,দিনমজুর আব্দুস সালাম,মেডিকেল শিক্ষার্থী,কলেজ শিক্ষার্থী সহ অনেকেই জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিজস্ব অর্থ সহায়তা পেয়ে উপকৃত হয়েছেন।সাম্প্রতিক তীব্র শীতে যখন দুর্গম এলাকার সাধারণ মানুষ কষ্ট পাচ্ছিলো তখন জেলা প্রশাসক মহোদয় নিজে শীতবস্ত্র নিয়ে ঘরে ঘরে গিয়েছিলেন এবং শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন।নিজস্ব অর্থায়নে ইফতার সামগ্রী বিতরণের সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি’র মানবিক চিন্তাভাবনারই একটি বহিঃপ্রকাশ।জেলা প্রশাসন প্রকৃত গরীব ও দুঃস্থ মানুষের হাতে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিজ অর্থায়িত ইফতার সামগ্রী পৌছে দিবে এবং মাসজুড়ে সাধারণ মানুষ এটা পাবে।তিনি বলেন, বান্দরবানের প্রতিটি মানুষের সুখ ও সমৃদ্ধ জীবনের জন্য জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি দিকনির্দেশনায় বান্দরবান জেলা প্রশাসন নিরলসভাবে কাজ করে যাবে।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
March 2024
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
26272829  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!