এই মাত্র পাওয়া :

শিরোনাম: সাদেক হোসেন চৌধুরী’কে ছুরিকাঘাত ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার ২ বান্দরবানে শেখ কামাল আন্ত: স্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা-২৩ অনুষ্ঠিত বান্দরবান ডায়াবেটিক সমিতির অভিষেক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বান্দরবান সদর থানার আয়োজনে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত বান্দরবানে জেলা ক্রীড়া অফিসের আয়োজনে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের বার্ষিক ক্রীড়া উৎসব অনুষ্ঠিত সম্প্রীতি আর উন্নয়ন নিয়ে পার্বত্য অঞ্চলে আমরা এগিয়ে যাচ্ছিঃ মন্ত্রী বীর বাহাদুর পরিচ্ছন্ন ও সবুজ বান্দরবান গড়ার লক্ষ্যে বান্দরবানে ছাত্রলীগের আয়োজনে পরিচ্ছন্নতা অভিযান শেখ কামাল যুব গেমসঃ চট্রগ্রাম বিভাগের বক্সিং প্রতিযোগিতায় বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থার জয়জয়কার

অবৈধ চোরাই কাঠ উদ্ধারে বনবিভাগের যৌথ অভিযান,বিপুল পরিমাণ কাঠ জব্দ


প্রকাশের সময় :৪ এপ্রিল, ২০১৭ ৬:১০ : পূর্বাহ্ণ 1072 Views

সিএইচটি টাইমস নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবানে কর্তন নিষিদ্ধ ২ হাজার ঘনফুট মূল্যবান চাম্পাফুল কাঠ জব্দ করা হয়েছে। যার আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ৬০ লাখ টাকা।সোমবার (৩ এপ্রিল) বিকেলে এই কাঠ জব্দ করা হয়।বনবিভাগ ও স্থানীয়রা জানায়,বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মো.কামাল হোসেন এবং বিভাগীয় বন কর্মকর্তা পাল্পউড বিপুল কৃষ্ণ দাশের নেতৃত্বে বনবিভাগের যৌথ অভিযানে বান্দরবানের ছয়টি স’মিলসহ (করাতকল) কাঠ ব্যবসায়ীদের কাঠের ডিপোতে অভিযান চালিয়ে কর্তন নিষিদ্ধ প্রায় ২ হাজার ঘনফুট বিভিন্ন সাইজের মূল্যবান চাম্পাফুল কাঠের রদ্দা জব্দ করা হয়েছে।জব্দ করা কাঠগুলো কাঠ ব্যবসায়ী লেডা জাহাঙ্গীর আলম,শহীদুল্লাহ শহীদ মাস্টার,মোহাম্মদ কাওছার,শামসুদ্দীন শামু,হাজী আহম্মদ সৈয়দ,জানে আলম’সহ আরো কয়েকজনের বলে জানা গেছে।তবে বনবিভাগের অভিযানের খবর পেয়ে অনেকে চাম্পাফুল কাঠ সরিয়ে ফেলেছেন বলে জানা যায়।জব্দ করা কাঠের আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ৬০ লাখ টাকা বলে জানিয়েছেন কাঠ ব্যবসায়ীরা।স্থানীয় বাজারে প্রতি ঘনফুট চাম্পাফুল কাঠ ৩ হাজার টাকা এবং ঢাকায় সাড়ে তিন থেকে ৪ হাজার টাকায় বিক্রি হয়।চম্পাফুল গাছ কর্তন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং এ কাঠ পরিবহন আইনগত অপরাধ।
নাম প্রকাশে অনিশ্চুক কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, চাম্পাফুল গাছের ব্যক্তি মালিকানাধীন কোনো বাগান নেই। থানচি এবং রুমা উপজেলার সরকারি রিজার্ভ ফরেস্ট (সংরক্ষিত বনাঞ্চল) থেকে অবৈধভাবে মাদারট্রি সাইজের চাম্পাফুল গাছগুলো কেটে জেলা শহরের স’মিলগুলোতে আনা হয়েছে। সড়ক ও নৌ পথে বনবিভাগসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক চেকপোস্ট থাকার পরও কিভাবে সরকারি রিজার্ভ ফরেস্টের কর্তন নিষিদ্ধ চাম্পাফুল কাঠ পাচার হচ্ছে।সংশ্লিষ্টরা জড়িত না থাকলে কর্তন নিষিদ্ধ চাম্পাফুল কাঠগুলো সড়ক ও নৌ পথে কিভাবে পরিবহনে বান্দরবান আসে।রিজার্ভ ফরেস্ট থেকে কাঠগুলো হেলিকপ্টার কিংবা বিমানে করেতো আনা হয়নি।অভিযুক্ত কাঠ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এবং জড়িত বনবিভাগের কর্তাব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বিভাগীয় বনকর্মকর্তা পাল্পউড বিপুল কৃষ্ণ দাশ জানান,চম্পাফুল গাছ কর্তন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।এ কাঠের কোনো ধরণের পারমিট ইস্যু করা হয় না।সরকারি রিজার্ভ ফরেস্টের গাছ কর্তন এবং চাম্পাফুল কাঠ ব্যবসায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।অবৈধ চোরাই কাঠ উদ্ধারে বনবিভাগের যৌথ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।(দি রিপোর্ট টুয়েন্টি ফোর ডটকম)

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
February 2023
M T W T F S S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!