দালালমুক্ত জনবান্ধব সেবার প্রচেষ্টায় বান্দরবান সদর ভূমি অফিস


অনলাইন ডেস্ক প্রকাশের সময় :৫ জুন, ২০২৩ ২:০৩ : পূর্বাহ্ণ 357 Views

কাজের সফল বাস্তবায়নই এনে দেয় কাজের সাফল্য।এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই দায়িত্ব গ্রহনের পর বান্দরবান সদর উপজেলায় কর্মরত সহকারী কমিশনার (ভূমি) নার্গিস সুলতানা এক গুচ্ছ পরিকল্পনা গ্রহন করেছেন।দালালমুক্ত নাগরিক সেবার প্রত্যয়ে নাগরিকদের সাথে সরাসরি কথা বলা ও ভূমি অফিস প্রাঙ্গনে সকল কর্মকর্তা- কর্মচারীদের নাম্বার দৃশ্যমান রাখাসহ ভূমি সেবা নিয়ে মানুষের দুর্ভোগ শূন্যের ঘরে পৌছাতে নিয়েছেন নানা উদ্যোগ।

ভূমিসেবা গ্রহীতার সন্তুষ্টি কে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করছে বান্দরবান সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয়। দেশের প্রতিটি ভূমি অফিসে দালাল চক্রের সিন্ডিকেট নিয়ে থাকে নানা অভিযোগ। আর এই কারনেই মেধাবী এই কর্মকর্তার সামনে দালাল চক্রের সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দেয়াই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছে স্থানীয় জনসাধারন।

জানা যায় ভূমি কার্যালয়ে আসা সেবাপ্রার্থীরা একসময় মনে করতেন,ভূমি কার্যালয়ে কাজ নিয়ে যাওয়া মানেই দালাল সিন্ডিকেট এর দৌরাত্ম্য। সাথে যুক্ত হয় দিনের পর দিন হয়রানি।কর্মচারীদের অবজ্ঞার পাশাপাশি থাকে চা খরচের নামে বাড়তি খরচ। বান্দরবান সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয়ও একসময় এমনটাই ছিলো।কিন্তু সেই কার্যালয়ে পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে।

ভূমি কার্যালয় এ কর্মরতরা এখন প্রান্তিক জনপদ থেকে আসা সেবাপ্রার্থীদের ভালো ব্যবহার দিয়ে সহযোগিতা করছেন।এতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন অনেক নারী পুরুষ।মেধা ও যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে ভূমি অফিসে কাজের গতি ফিরিয়ে স্থানীয় সেবাপ্রার্থী জনসাধারন এর প্রশংসাও কুড়াচ্ছেন সদর উপজেলা এর এই ভূমি কর্মকর্তা।

আবু তাহের নামক এক সেবাপ্রার্থী জানান,বর্তমান ভূমি কর্মকর্তার দূরদর্শী কাজের জন্য আমরা সহজে সেবা পাচ্ছি।তিনি ভূমি অফিসের দায়িত্ব নেয়ার পর ভূমিদস্যু ও দালালদের দৌরাত্ব কমছে।এ উপজেলার ভূমি কার্যালয়ে এসে মানুষ সঠিক সেবা টি পাচ্ছেন বলেও তিনি মনে করেন।

সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে আসা সেবাপ্রার্থী সুলতানপুর এর বাসিন্দা হাছিনা বেগম বলেন, আমরা বিগত সময়ে ভূমি অফিসে বিভিন্ন কাজে এসে সহজে কাজ করতে পারিনি।বরং দালালদের মাধ্যমে খরচ দিয়েও প্রয়োজনীয় কাজটি করার জন্য অনেক ঘুরতে হয়েছে।বর্তমান ভূমি কার্যালয় নিয়মমাফিক যথেষ্ট আন্তরিকতার সাথে কাজ করায় আমরা এখন ভূমি সংক্রান্ত যে কোন কাজ সঠিক সময়ে সহজেই শেষ করতে পারছি।

সরকারী খরচ ছাড়া বাড়তি কোনও টাকা খরচ হচ্ছেনা।শুনেছি ভূমি অফিসকে দালাল,ঘুষ ও দূর্নীর্তি মুক্ত করার জন্য বর্তমান কর্মকর্তা কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করছেন এমনটাই উল্লেখ করেন হাসিনা বেগম।

ভূমি অফিস কে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার আহবান জানিয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি (দুদক) সভাপতি অংচ মং মার্মা বলেন,জনগন এর জন্য সরকারি কর্মকর্তারা যখনই ভালো কোনও উদ্যোগ গ্রহন করে আমরা তখন সেই উদ্যোগ কে স্বাগত জানাই।তবে প্রান্তিক পর্যায় এর মানুষকে ভূমি কর্মকর্তা কতৃক গ্রহন করা উদ্যোগ গুলো প্রচার ও প্রচারনা দিয়ে ছড়িয়ে দিতে হবে।দুর্নাম গুলো মুছতে হলে শুধু প্রশাসনিক ভূমি কর্মকর্তা নয় বরং সব শ্রেনীপেশার মানুষকে সহযোগিতা করতে হবে।অনেকে হয়রানি বা আর্থিক লেনদেন এর বিষয়গুলো গোপন করে।এই গোপন করার যে অপসংস্কৃতি এটা থেকে নাগরিকদের বের হয়ে আসতে হবে।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নার্গিস সুলতানা বলেন, সততা ও নিষ্ঠার সাথে মানুষের কল্যাণে কাজ করার চেষ্টা করছি।সরকারী আইন-কানুন ও বিধিবিধান অনুসরণপূর্বক জেলা প্রশাসক প্রদত্ত দিক নির্দেশনা,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্যারের পরামর্শ অনুযায়ী ভূমি সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করছি।

অল্প কিছুদিন আগে দায়িত্ব নেয়া এ কর্মকর্তা আরও বলেন,সদর উপজেলার ভূমি অফিসের দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত।ভূমি অফিসে কোনো আর্থিক লেনদেনের সুযোগ নেই এবং কোনো প্রতিবেদন দিতে সরকারি কোনো খরচ নেই।তাই কেউ ভূমি সংক্রান্ত কাজে দালালের কাছে না গিয়ে সরাসরি তাদের এসি ল্যান্ডের সাথে যোগাযোগ করার জন্য সকলকে অনুরোধ জানান।

এসময় এ কর্মকর্তা আরও বলেন,ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি তার কর্মস্থলকে মডেল হিসেবে তুলে ধরার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।কর্মক্ষেত্রে আগামীতে সকলের সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে ভূমি সংক্রান্ত কাজ গুলো এর ইতিবাচক ধারাবাহিকতা রক্ষায় কাজ করে যাবো।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
July 2024
M T W T F S S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!