এই মাত্র পাওয়া :

বান্দরবানের পূরবী-পূর্বানী তে যুক্ত হচ্ছে এসি বাস!


লুৎফুর রহমান উজ্জ্বল, (বান্দরবান অফিস) প্রকাশের সময় :২ নভেম্বর, ২০১৯ ৭:১৭ : অপরাহ্ণ

পর্যটন শহর বান্দরবান।অনেকে রূপের রানী বলেও সম্বোধন করে থাকে।সারা বছরই পর্যটকের আনাগোনায় মূখর থাকে বান্দরবানের পর্যটন স্পটগুলো।কিন্তু স্থানীয় জনসাধারণ এবং পর্যটকরা পরিবহন সেবা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিস্তর অভিযোগ তুলে আসছিলো বিভিন্ন ভাবে।যা সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষ করে ফেসবুকে অনেক বেশি লক্ষ্য করা যায়।সম্প্রতি পরিবহন সেবা নিয়ে এক ধরনের বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হয়।এরমধ্যেই যাত্রীদের গনদাবীর প্রেক্ষিতে বান্দরবানের পরিবহন সেবায় গত ২৭ অক্টোবর (রবিবার) সকালে সরকারি পরিবহন সংস্থা বিআরটিসি বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে নতুন এসি বাস সার্ভিস চালু করে।বিআরটিসি’র এই এসি পরিবহন সেবা নিয়ে যাত্রীরা প্রচন্ড খুশি হয়।দেখা দেয় নতুন সমস্যা,বান্দরবান পরিবহন মালিক সমিতির সাথে সমন্বয়হীনতা এবং নির্ধারিত সিডিউল অনুসরণ করে বাস ছাড়া হচ্ছে না অভিযোগ তুলে গত ২৯ অক্টোবর (মঙ্গলবার) বাস মালিক ও শ্রমিক সমিতি দুই ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।পত্রপত্রিকায় প্রধান শিরোনামে পরিণত হয় বান্দরবানের যান চলাচল বন্ধের সংবাদ।এমনকি বিআরটিসি কাউন্টারে হামলার মতো অনভিপ্রেত ঘটনাও ঘটে,তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।পরে একই দিন বিকেলে পূর্বানী মালিক সমিতির কার্যালয়ে বান্দরবানের স্থানীয় প্রশাসন,বাস মালিক ও শ্রমিক সমিতি এবং বিআরটিসি কতৃপক্ষ বান্দরবানের স্থানীয় সিনিয়র সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে ত্রিপক্ষীয় আলোচনা ও রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।বাস বন্ধ করা নিয়ে কিছু অনাহুত ভুল বুঝাবুঝিরও সৃষ্টি হয় বিআরটিসি কতৃপক্ষ তথা বিআরটিসির বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি সাদেক হোসেন চৌধুরীর সাথে বান্দরবান পরিবহন মালিক সমিতির শীর্ষ সারির অন্যতম নেতা সুব্রত কান্তি দাস (প্রকাশ ঝন্টু বাবু),উজ্জ্বল কান্তি দাস,অমল কান্তি দাসের।পত্রপত্রিকা এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় এই তিন নেতাকে নিয়ে ব্যাপকভাবে নেতিবাচক খবর প্রকাশিত হয় পাশাপাশি তাদের ভূমিকা নিয়ে নেটিজেনরা বিস্তর অভিযোগ তোলে।যদিও পরিবহনের এই নেতাদের অভিযোগ বেশিরভাগ পত্রপত্রিকা তাদের বক্তব্য না নিয়ে যাচ্ছেতাইভাবে বিকৃত সংবাদ উপস্থাপন করেছে।বান্দরবানের পরিবহণ জগৎ এর মুঘল খ্যাত কাজল কান্তি দাসকেও উন্নত পরিবহন ব্যাবস্থার অন্যতম প্রতিবন্ধক হিসেবে চিহ্নিত করে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ উপস্থাপন করা হয়।তাকে নিয়েও শুরু হয় ব্যাপক সমালোচনা।প্রকাশিত হয় নেতিবাচক সংবাদ।কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা যায় পরিবহন সেবা উন্নত করে যাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে অনেকদিন আগে থেকেই তিনি আন্তরিকভাবে কাজ করছিলেন।রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে হাজারো ব্যাস্ততার পরও তিনি নিজে স্বশরীরে বান্দরবান বাস টার্মিনালে উপস্থিত হয়ে পরিবহন সেবার শৃঙ্খলা রক্ষা ও সংস্কার কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।দিয়েছেন দিকনির্দেশনামূলক নানা সিদ্ধান্ত।গত ২৯ অক্টোবরের অনির্ধারিত বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ৩১ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) বিকেলে বান্দরবান পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে মালিক ও শ্রমিক সমিতির সাথে বিআরটিসি কতৃপক্ষের শান্তিপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমে অনাহুত ভুল বুঝাবুঝির নিরসন ঘটে।মেয়র মোঃইসলাম বেবীর উপস্থিতিতে উক্ত বৈঠকে বিআরটিসি বাসের নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়।ফলপ্রসূ এই আলোচনার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) সকাল থেকে বিআরটিসি এসি বাস নতুন করে যাত্রীসেবায় চলাচল শুরু করবে।বিআরটিসি এসি বাসের সিডিউল নির্ধারণের পরপরই বিআরটিসির এই এসি বাস সেবার সাথে পাল্লা দিতে অনানুষ্ঠানিকভাবে পূরবী-পূর্বানী বাস পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সমিতির শীর্ষ নেতারা কিভাবে পরিবহন সেবা উন্নত করা যায় তা নিয়ে আলোচনা শুরু করে।এরই ফলশ্রুতিতে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সমিতির নেতারা নিজেদের করনীয় ঠিক করতে আজ শনিবার (২ নভেম্বর) পূর্বানী মালিক সমিতির কার্যালয়ে বৈঠকে মিলিত হয়।বৈঠক সুত্রে জানা যায়,জেলার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবীর মুখে সময়ের সাথে সঙ্গতি রেখে পূরবী-পূর্বাণী পরিবহণ মালিকরা এবার যাত্রী সেবার মান উন্নয়নে বদ্ধ পরিকর।তাই আজ শনিবার (২নভেম্বর) শহরের পূর্বাণী মালিক সমিতির কার্যালয়ে উভয় পরিবহণের মালিকরা বৈঠক করে।বৈঠকে বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে “ক্লোজ ডোর” সার্ভিসগুলো সচল করার পাশাপাশি চলতি মাসেই ৪টি এসি বাস চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।আগামীকাল ৩ নভেম্বর রবিবার আরও একটি আলোচনা সভার কথা রয়েছে।শৈলশোভা সড়ক পরিবহন সমিতির সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সিএইচটি টাইমস ডটকমকে বলেন,বান্দরবান এর পরিবহন সেবা উন্নত করতে আলোচনা চলছে।পূরবী-পূর্বাণীর পরিবহন সেবা যে বদলে যাবে এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নাই।সার্বিক বিষয় নিয়ে আজ শনিবার প্রাথমিকভাবে অনেক গুলো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।এখন থেকে যাত্রীদের উন্নত সেবা দিতে সব ধরণের চেষ্টা থাকবে।বৈঠক প্রসঙ্গে পূরবী-পূর্বাণী মালিক সমিতির নেতা অমল দাস বলেন,আজ শনিবার অনুষ্ঠিত মালিক সমিতির বৈঠক থেকে আমরা যাত্রী সেবায় নতুন করে অনেকগুলো উদ্দ্যেগ গ্রহন করেছি,আলাপ আলোচনা চলছে,কাল রোববার এই বিষয়গুলোর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসছে।এদিকে, বান্দরবান বিআরটিসির প্রতিনিধি সাদেক হোসেন চৌধুরী এক ফেসবুক বার্তায় বলেছেন পরিবর্তনের এই শুভ সূচনায় ৩য় কোনও পক্ষ যাতে ফায়দা লুটতে না পারে সেই ব্যাপারে যাত্রী এবং আমাদেরও সতর্ক থাকতে হবে।উল্লেখ্য,বান্দরবান পার্বত্য জেলার অভিভাবক পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র দীর্ঘদিনের চাওয়া, “উন্নত পরিবহন সেবা” নিশ্চিত করার বিষয়টি দীর্ঘদিন পর হলেও বান্দরবান পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতারা তাদের এই নতুন সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে আমলে নিলো।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ



আর্কাইভ
February 2020
M T W T F S S
« Jan    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!