শিরোনাম: থানচিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের ঘর পেলো ১০৫ পরিবার বান্দরবানে সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠন হিসেবে যাত্রা শুরু করলো স্বপ্নবিলাস গোপালগঞ্জের সাভানা ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড ন্যাচারাল পার্কে রিসিভার নিয়োগ করলো জেলা প্রশাসন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরন অনুষ্ঠিত ভূমিসেবা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের প্রেস কনফারেন্স অনুষ্ঠিত যথাযোগ্য মর্যাদায় বান্দরবানে পালিত হলো বিশ্ব পরিবেশ দিবস সাতাঁর প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরন অনুষ্ঠিত বিএনপি পার্বত্য অঞ্চলকে অন্ধকারে নিমজ্জ্বিত একটি জনপদে পরিনত করেছিলোঃ বীর বাহাদুর

শপথ নিতে ভোটারদের হুঁশিয়ারি, আতঙ্কে বিএনপির বিজয়ী প্রার্থী জাহিদ


সিএইচটি টাইমস নিউজ ডেস্ক প্রকাশের সময় :২২ এপ্রিল, ২০১৯ ২:০৮ : অপরাহ্ণ 558 Views

একাদশ সংসদে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ নেয়ার সময় ফুরিয়ে আসছে৷ হাতে আছে ১০ দিনেরও কম সময়৷ অন্যদিকে শপথ বিষয়ে ভোটারদের চাপ তো আছেই। তবুও বিএনপির নোংরা রাজনীতির বলি হতে চলেছেন একাধিক অসহায় বিজয়ী প্রার্থী। এমনই একজন ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে বিজয়ী প্রার্থী জাহিদুর রহমান। সম্প্রতি তিনি প্রকাশ্যে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শপথ না নিলে তার এলাকার লোকজন তাকে হেনস্তা করতে পারে। এমনকি শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতও করতে পারে। তার ভাষ্যমতে, ঠাকুরগাঁওয়ের জনগণ ইতোমধ্যেই শপথ না নিলে তাদের সঙ্গে বেইমানি করা হবে বলেও হুমকি ধমকি দিতে শুরু করেছেন।

এ প্রসঙ্গে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের অধিভুক্ত রানীশংকৈল উপজেলার হোসেনগাঁও ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দা আবুল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, একাদশ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী জাহিদুর রহমানকে স্থানীয় জনগণ সংসদে জনগণের কথা জানানোর জন্য ভোট দিয়েছেন। জনগণের সমস্যার কথাই যদি তিনি সংসদে বলতে না পারেন তাহলে নির্বাচনে দাঁড়ানোর কোনো প্রয়োজন ছিলো না। শপথ না নিলে বিএনপি নেতা জাহিদুর রহমান এলাকায় আর কখনো ঢুকতে পারবেন কিনা সন্দেহ আছে।

তিনি বলেন, বিএনপির নোংরা রাজনীতির জন্য ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে বিজয়ী প্রার্থী জাহিদুর রহমান শপথ নিতে চাচ্ছেন না। যা স্থানীয় জনগণ কখনই মানবে না। সাধারণ জনগণ মনে করেন, জনগণের স্বার্থে তার শপথ নেয়া উচিত।

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে মোট ৮ জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন৷ তাদের মধ্যে ছয় জন বিএনপি’র এবং দুই জন গণফোরামের৷ ৩০ জানুয়ারি জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসলেও ৮ মার্চ শপথ নেন মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে গণফোরামের সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ৷ আর ২ এপ্রিল শপথ নেন গণফোরাম থেকে নির্বাচিত আরেকজন সংসদ সদস্য সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত মোকাব্বির খান।

তবে বিএনপি থেকে নির্বাচিত ছয় জন এখনো শপথ নেননি৷ নির্বাচনের পরপরই বিএনপি তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে নির্বাচন বয়কট করে৷ দলের নির্বাচিত এমপিরা শপথ নেবেন না বলে জানানো হয়৷ পরে গণফোরামের দুই এমপি শপথ নিলেও বিএনপির বিজয়ীরা সংসদে যাবে না বলে স্পষ্ট ঘোষণা দেয়া হয়। এ নিয়ে দলের অভ্যন্তরে মতানৈক্য দেখা দিলেও শপথ না নেয়ার সিদ্ধান্তেই অনড় দলের একাংশ।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
June 2024
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!