শিরোনাম: থানচিতে পর্যটকের মোবাইলসহ নগদ টাকা ছিনিয়ে নিল কেএনএফ সশস্ত্র বাহিনী ৪০ হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধার করলো ২ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন স্মার্ট বান্দরবান-স্মার্ট ক্রীড়াঙ্গনঃ পুলিশ সুপার সৈকত শাহীনের উপহার পেলো কাবাডি খেলোয়াড়রা রিজিয়ন প্রীতি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২৪ এর ফাইনাল খেলা ও পুরষ্কার বিতরন অনুষ্ঠিত বীর বাহাদুর স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরন অনুষ্ঠিত পাহাড়ের বৈচিত্র্য ও সৌন্দর্য্য বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে বান্দরবানে হয়ে গেলো ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতা যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বান্দরবানে পালিত হলো অমর একুশে বান্দরবানে জেলা প্রশাসকের বিশেষ বিবেচনায় দ্রুত সময়ে স্থায়ী বাসিন্দা সনদ পেলেন মেধাবী শিক্ষার্থী ক্য ক্য উঁয়া মার্মা

প্রথমবার ১৩ কৃষক পেলেন এআইপি সম্মাননা


অনলাইন ডেস্ক প্রকাশের সময় :২৮ জুলাই, ২০২২ ১১:৩৮ : অপরাহ্ণ 169 Views

দেশে প্রথমবারের মতো সিআইপি সমমানের মর্যাদা ও সুযোগ-সুবিধা পাবেন মাঠের কৃষকরা।কৃষি মন্ত্রণালয় প্রথমবারের মতো কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ১৩ ব্যক্তিকে এআইপি-২০২০ সম্মাননা দিয়েছে।জাতীয় স্বীকৃতি পাওয়ায় অভিভূত ও আবেগাপস্নুত হয়েছেন সম্মাননা প্রাপ্ত কৃষকগণ। মাটির সঙ্গে যাদের পথচলা তারা জীবনে প্রথম ঢাকায় আলো ঝলমলে মঞ্চে জাতীয় স্বীকৃতি হিসেবে সম্মাননা পেয়ে আবেগে চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি।

বুধবার (২৭ জুলাই) সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কৃষকদের এগ্রিকালচারালি ইমপর্ট্যান্ট পারসন (এআইপি) সম্মাননা প্রদান করা হয়। কৃষিমন্ত্রী ডক্টর মো. আব্দুর রাজ্জাক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ সম্মাননা প্রদান করেন। এ সময় মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সম্মাননা প্রাপ্ত কৃষকগণ পেয়েছেন, কৃষি মন্ত্রণালয়ের একটি প্রশংসাপত্র, এক বছর মেয়াদে বাংলাদেশ সচিবালয়ে প্রবেশের জন্য পাস, বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠানে নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ; বিমান, রেল, সড়ক ও জলপথে ভ্রমণকালীন সরকার পরিচালিত গণপরিবহণে আসন সংরক্ষণে অগ্রাধিকার। এছাড়া ব্যবসা-দাপ্তরিক কাজে তাদের বিদেশে ভ্রমণের জন্য ভিসা প্রাপ্তির নিমিত্তে মন্ত্রণালয়ের লেটার অব ইন্ট্রোডাকশন ইসু্য করবে। নিজের ও পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালের কেবিন সুবিধা প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার পাবেন এবং বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ব্যবহারে সুবিধা পাবেন।

বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কারে স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত বিভাগে এআইপি সম্মাননা প্রাপ্ত মোছা. নুরুন্নাহার বেগম অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, ‘কৃষিকাজ করে এত বড় সম্মান পাওয়া যাবে আমরা কল্পনাও করিনি। আমাকে কেউ ১০ লাখ টাকা দিক, আমি তা চাই না। কিন্তু এ সম্মাননা অনেক বড় পাওয়া। তিনি বলেন, মাটিকে ঘুষ দেওয়া লাগে না। মাটির সঙ্গে পরিশ্রম করলে, মাটি আমাদের সঙ্গে কথা বলে। আমাদের মতো কৃষককে এত বড় সম্মাননা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা জানাই।’

ঈশ্বরদীর জয়নগর এলাকার সাড়ে ৩২ হেক্টর জমির ওপর ‘নুরুন্নাহার কৃষি খামারে’ যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও কৃষিমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি। তার খামারে ৩ হাজার ২৫৩ জন কর্মী কাজ করে। দুই কোটি ৩৪ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে বর্তমানে তিনি বছরে ৯০ লাখ ৪২ হাজার টাকার বেশি আয় করছেন।

এআইপি সম্মাননা পেয়েছেন কুমিলস্নার নাঙ্গলকোর্টের বিছমিলস্নাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন কেন্দ্র ও খামারের মালিক মো. সামছুদ্দিন কালু। অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বলেন, ‘মাছের ব্যবসা শুরু করার সময় চৌধুরী বংশের এক বন্ধু মানসম্মানের ভয়ে ব্যবসায় আসেনি। আর আজকে আমার মতো একজন মাইচ্ছ বা চাড়ালকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এআইপি সম্মানে ভূষিত করেছেন। এটি বাংলাদেশের জন্য একটি দৃষ্টান্ত। এ দেখে পুরো জাতি জাগ্রত হবে।’ বর্তমানে তার ৪৫ হেক্টরের মাছের খামার রয়েছে।

এ সময় কৃষিমন্ত্রী ডক্টর মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এআইপি সম্মাননা দেওয়ায় কৃষকদের মর্যাদা আরও বৃদ্ধি পাবে। সম্মাননা প্রাপ্ত কৃষকগণ সিআইপি সমমানের মর্যাদা ও সুযোগ-সুবিধা পাবেন। দেশের কৃষির সাফল্যের অন্যতম কারিগর দেশের কৃষক, কৃষিবিজ্ঞানী, উদ্যোক্তা, উৎপাদনকারী, খামারিসহ কৃষির সঙ্গে সম্পৃক্তদেরকে প্রতি বছর সম্মাননা জানানোর জন্য এটি একটি মহৎ উদ্যোগ। কৃষকদের সম্মান জানানোর জন্য এটি একটি নতুন উদাহরণ। এআইপি সম্মাননা প্রবর্তন কৃষি খাতে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে। এর ফলে কৃষি পেশার মর্যাদা আরও বৃদ্ধি পাবে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এআইপি সম্মাননা দিয়ে আমরা কৃষকসহ কৃষির সঙ্গে সম্পৃক্তদের সম্মানিত করেছি, নিজেকে সম্মানিত করেছি এবং সেইসঙ্গে জাতিকেও সম্মানিত করেছি। আগামী দিনের কৃষিকে আমরা বাণিজ্যিক ও সম্মানজনক পেশা হিসেবে উন্নীত করতে চাই। কৃষিতে শিক্ষিত, মেধাবী ও সৃজনশীল তরুণদের আকৃষ্ট করতে চাই। এ সম্মাননা এক্ষেত্রে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।’

এআইপি সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার। সভাপতিত্ব করেন কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তার।

উলেস্নখ্য, দেশের কৃষির সাফল্যের অন্যতম কারিগর কৃষক, কৃষিবিজ্ঞানী, উদ্যোক্তা, উৎপাদনকারী, খামারিসহ কৃষির সঙ্গে সম্পৃক্তদেরকে প্রতি বছর সম্মাননা জানাতে ও তাদেরকে উৎসাহিত করতে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) সম্মাননা প্রদানের জন্য ২০১৯ সালে এআইপি নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়। তার আলোকে বুধবার প্রথমবার ২০২০ সালের সম্মাননা প্রদান করা হয়।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ

ফেইসবুকে আমরা



আর্কাইভ
February 2024
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
আলোচিত খবর

error: কি ব্যাপার মামা !!