আজকে ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ | | সময়ঃ-০২:২৬ অপরাহ্ন    

Home » রোয়াংছডি

রোয়াংছডি

রোয়াংছড়িতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে মহা-সাংগ্রাই ও বৈসাবি উৎসব

নিউজ ডেস্কঃ- বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে মহা-সাংগ্রাই ও বৈসাবি উৎসব উপলক্ষে পুরানো বছরকে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নিয়েছে অত্র এলাকার সকল সম্প্রদায়ের মানুষ।এ সম্প্রীতি উৎসবকে ঘিরে রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জলকেলি বা মৈত্রি পানি বর্ষণের মধ্যে দিয়ে ৩দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান শেষ হয়েছে আজ।মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিকালে জলকেলি অনুষ্ঠানে মহাসাংগ্রাই উৎসব উদযাপন কমিটি সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান অংশৈমং মারমা সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদে অন্যতম সদস্য কাঞ্চনজয় তঞ্চঙ্গ্যা,উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান চহ্লাইমং মারমা,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মেহেদী হাসান,রোয়াংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান চহ্লামং মারমা,বান্দরবানে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ পরিচালক অংচলু,রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ মো: শরিফুল ইসলাম,উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কমান্ডার মো: তানজির আজাদ প্রমুখ। এছাড়া এলাকার স্থানীয় মেম্বার,হেডম্যান,কারবারি ও সুশীল সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
এসময় আদিবাসী মারমা সম্প্রদায়ের তরুনতরুণীরা পানি বর্ষণে মেতে উঠে। উৎসবে শত শত তরুন-তরুনী নাচে গানে মেতে উঠে সাংগ্রাই উৎসব পালন করে।

 

তথ্য সুত্রঃ-পাহাড় বার্তা.ডটকম

বান্দরবানে ৬টিতে আওয়ামীলীগ,১টি স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত

বান্দরবান অফিসঃ-  বান্দরবানের উপজেলা পরিষদ নির্বাচেন ৬টিতে আওয়ামীলীগ, ১টি স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত । সদর উপজেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী একেএম জাহাঙ্গীর, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো: শফিউল্লাহ , রোয়াংছড়ি, উপজেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী চহাইমং মারমা,থানচি আওয়ামীলীগের প্রার্থী থোয়াই হ্লা মং, রুমা উপজেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী উহ্লাচিং মারমা,আলীকদম উপজেলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম ও লামা উপজেলায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী মোস্তফা জামাল বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচনে বান্দরবানে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ

বান্দরবান অফিসঃ-  দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বান্দরবানের ৭টি উপজেলার চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল (২৮ ফেব্রুয়ারী) বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে বান্দরবান জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেন দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা রিটানিং কর্মকর্তা মো:আবুল কালাম। এসময় উপজেলার প্রার্থী ও প্রার্থীদের পক্ষে সমর্থকরা তাদের পক্ষে প্রতীক গ্রহণ করেন। প্রতীক বরাদ্দের সময় সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো:শাহাদাৎ হোসেনসহ বিভিন্ন উপজেলার প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

২য় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বান্দরবানের ৭টি উপজেলার মধ্যে ৭টিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ১৮ই মার্চ। এবারের উপজেলা নির্বাচনে ৬টি চেয়ারম্যান পদে ১৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন অংশ নিচ্ছে, তবে লামা উপজেলায় এখনো প্রার্থীতা প্রত্যাহার ও প্রতীক বরাদ্ধ দেয় হয়নি।

বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো:শাহাদাৎ হোসেন জানান,বান্দরবানের সাতটি উপজেলা বান্দরবান সদর,লামা,আলীকদম,থানছি,রুমা,নাইক্ষংছড়ি,রোয়াংছড়িতে উপজেলা নির্বাচন আগামী ১৮ই মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। তবে আওয়ামীলীগের এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে লামা উপজেলায় প্রার্থীতা প্রত্যাহার ও প্রতীক বরাদ্ধ অন্যান্য উপজেলা থেকে এক দুইদিন বেশি সময় লেগে যাবে।

তিনি আরো জানান, এবারের উপজেলা নির্বাচনে বান্দরবান সদর,আলীকদম,রোয়াংছড়ি ও থানছি উপজেলার রিটানিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো:আবুল কালাম এবং রুমা,লামা ও নাইক্ষংছড়ি উপজেলার রিটানিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো:রেজাউল করিম।

সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো:শাহাদাৎ হোসেন আরো জানান, বান্দরবানে এবার ২লক্ষ ৪৬ হাজার ১শত ৮৪জন ভোটার উপজেলা নির্বাচনে ভোট কার্যক্রমে অংশ নেবে।

রোয়াংছড়ি মডেল স:প্রা:বি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণী

বান্দরবান অফিসঃ-বান্দরবানে রোয়াংছড়ি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কতৃক উদ্যোগে বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, মেধাবী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণী অনুুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।আজ রবিবার ৩রা ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ টায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে অত্র বিদ্যালয়ে এসএমসি সভাপতি অংশৈচিং মারমা সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা মারমা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রোয়াংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যবামং মারমা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য কাঞ্চনজয় তঞ্চঙ্গ্যা প্রমুখ।আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আবু ছালেহ সরকার, স্কুলে প্রধান শিক্ষক উচহ্লা মারমা, সিনিয়র শিক্ষক(অবঃপ্রাপ্ত) মংপু মারমা সহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষকমণ্ডলী, শিক্ষার্থীবৃন্দ ও অভিভাবকগণ।অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান ক্যবামং মারমা বলেন, আমাদেরকে শিক্ষার প্রতি আরো সচেতন হতে হবে। সন্তানরা ঠিকমত লেখাপড়া করেছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা মারমা বলেন, যে শিক্ষক নিয়মিত স্কুলে যাবেনা, ঠিকমত ক্লাস করবেনা তাদেরকে বরখাস্ত করা হবে। দরকারে নতুন শিক্ষক নিয়োগ নেয়া হবে। ক্লাস ফাকি দেয়া যাবে।

রুমা-রোয়াংছড়ি সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

নিউজ ডেস্কঃ-পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, পাহাড়ের অনেক গ্রাম আছে যেখানে উৎপাদন ভালো হয়, কিন্তু যোগযোগের অভাবের কারণে কৃষকরা তাদের সেই উৎপাদিত পণ্য ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করতে পারে না। এই সড়কগুলো হয়ে গেলে যারা ব্যবসা বাণিজ্য করেন তারা আমাদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে যেতে পারবেন এবং কৃষকরাও ন্যায্য মূল্য পাবেন।

শুক্রবার সকালে বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলা সদর থেকে রুমা উপজেলা সদর পর্যন্ত ৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে পল্লী সড়ক নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে তিনি এসব কথা বলেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে প্রায় ২১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ওই সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে ।

বীর বাহাদুর উশৈসিং আরও বলেন, এক উপজেলার সঙ্গে আরেক উপজেলার সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। আর সড়ক পথের যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে রাস্তার দুই পাশে আনাবাদী জমিগুলো আবাদযোগ্য হবে। আর রাস্তার দুই পাশ ঘিরে পাড়া, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে। এই সড়কের ফলে বান্দরবান-রুমা-রোয়াংছড়ি যোগাযোগ আরও বেশি উন্নত হবে এবং মানুষের কষ্ট লাঘব হবে ।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আবুল কালাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো কামরুজ্জামান,বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য কাঞ্চন জয় তঞ্চঙ্গ্যা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকোৗশলী ইয়াসির আরাফাত, প্রকল্প পরিচালক আব্দুল আজিজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং আজ শুক্রবার প্রথম সফরে যাচ্ছেন রোয়াংছড়িতে

নিউজ ডেস্কঃ-পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে আজ প্রথম সফর আগমণ উপলক্ষে পুরোদমে ব্যাপক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ইং অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে বান্দরবান ৩০০ নং আসন থেকে বীর বাহাদুর উশৈসিং সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ৬ জানুয়ারী ২০১৯ইং নতুন সরকার মন্ত্রী পরিষদ গঠন করলে তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান। নতুন সরকারের মন্ত্রীত্ব দায়িত্ব পাওয়ার পর এ প্রথম সফরে যাচ্ছেন রোয়াংছড়িতে। রোয়াংছড়ি উপজেলা বাসির প্রিয় নেতা পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপির সাথে সাক্ষাতের অপেক্ষায় রয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসীরা।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, পার্বত্য মন্ত্রীর প্রথম সফরকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। প্রথম সরকারি সফরে এসে রোয়াংছড়ি কেন্দ্রীয় জেতবন বৌদ্ধ বিহারে পারিবারিক ভাবে ধর্মীয় কৌশল কর্ম সম্পাদন সহ সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচী পরিদর্শন ও দলীয় কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করা কথা রয়েছে।
এসময় বান্দরবান ইউনিট উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারি প্রকৌশলী মো: এরশাদ বলেন, মন্ত্রীর এ সফরকে ঘিরে উন্নয়ন বোডের্র ৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ের রোয়াংছড়ি উপজেলা-রুমার উপজেলা সড়কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

রোয়াংছড়িতে এক চোলাই মদ ব্যবসায়ী আটক

নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবানের রোয়াংছড়ি বাজার এলাকায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে চোলাই মদ সহ পলাশ তঞ্চঙ্গ্যা (৪৮) নামে একজনকে আটক করেছে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শরিফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে রোয়াংছড়ি পাড়া এলাকায় অভিযান চালায়।
এতে রোয়াংছড়ি বাজার পাড়া বাসিন্দা মৃত বন মোহন তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে পলাশ তঞ্চঙ্গ্যা বাড়িতে বাংলা বা চোলাই মদসহ মদের তৈরি সরঞ্জামদি দেখতে পেয়ে আটক করেছে পুলিশ।
রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শরিফুল ইসলাম ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, রাতে ৮টার দিকে বিশেষ সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ ফোর্স নিয়ে চোলাই মদ সরঞ্জামদি সহ পলাশ তঞ্চঙ্গ্যাকে আটক করেছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজু করা হবে।

রোয়াংছড়িতে মহান বিজয় দিবস পালিত

নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবানে রোয়াংছড়ি উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সূর্যদয়ের সাথে সাথে যথাযথ মর্যাদায় ও বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্যে দিয়ে রোয়াংছড়ি কেন্দ্রীয়
শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন নানা শ্রেণি পেশায় মানুষ। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আরো পৃথক পৃথক ভাবে বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অঙ্গসহযোগি সংঠগনের নেতা কর্মীসহ শত শত জনসাধারণ।পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জাতির গোষ্ঠীর অংশগ্রহণের নাচ গান পরিবেশন, পায়রা এবং ফানুস উড়া মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান ক্যবামং মারমা।রবিবার রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় নির্বাহী অফিসার শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান ক্যবামং মারমা। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন রোয়াংছড়ি আর্মি ক্যাম্পে লেফটেন্যান্ট ফারহান, রোয়াংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শরিফুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা মো: শামসুল ইসলাম, রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো: আব্দুর সবু প্রমুখ।

বান্দরবানে এলজিইডি’র কাজে নিম্নমানের বালু ও ইট ব্যবহারের অভিযোগ

নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) সড়ক নির্মাণ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের বালু, মাটি ও নিম্নমানের ইটের কংকর। রোয়াংছড়ির ঘেরাও ভিতর পাড়ার এক কিলোমিটার রাস্তার নতুন কার্পেটিং করছে মেসার্স আবছার কন্সট্রাকশনের মো. আবছার নামের ঠিকাদার। এ কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ১ কোটি টাকারও বেশি।সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা গেছে, ঘেরাও ভিতর পাড়ায় নতুন কার্পেটিং সড়কের কাজ চলছে।আর এ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে পাহাড় কেটে সংগৃহীত নিম্নমানের মাটি মিশ্রিত বালি ও পুরাতন ইটের নিম্নমানের কংকর।এ বিষয়ে রোয়াংছড়ির সাথুই অং মারমা বলেন, যে রাস্তার কাজ করা হচ্ছে তাতে বালু এবং ইটের কংকর দুটোই ব্যবহার করা হচ্ছে অত্যন্ত নিম্নমানের। আর এতে এ সড়কটি স্থায়িত্বের আশঙ্কা করছেন তিনি।সড়ক নির্মাণ শ্রমিকরা জানান, পাহাড়ের মাটি মিশ্রিত বালি ও পুরাতন ইট দিয়ে কাজ করায় এ সড়কটি দ্রুত ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারপরও ঠিকাদারের দেওয়া সরঞ্জাম ও নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কাজ না করার উপায় নেই।এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে কাজের মাঝি ইলিয়াছ ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত সটকে পড়েন।রোয়াংছড়ি এলজিইডি অফিসের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা সিনিয়র প্রকৌশলী নাজমুস সাহাদাত জিল্লুর রহমান বলেন, সড়ক নির্মাণের যে কাজটির ব্যয় ১ কোটি টাকার কিছু বেশি। তবে পাহাড়ের বালু মাটি ব্যবহারের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে এ রাস্তায় আগে যে পুরাতন ইট ছিল তা ব্যবহার করার জন্যও নির্দেশনা রয়েছে।এ প্রসঙ্গে জানতে ঠিকাদার আবছারকে একাধিকবার ফোন করে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

রোয়াংছড়িতে পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের সাথে সেনাবাহিনীর গুলি বিনিময়

বান্দরবান অফিসঃ-বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে পাহাড়ী সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের সাথে সেনাবাহিনীর গুলিবিনিময় হয়েছে। সোমবার (১২ নভেম্বর) গভীর রাতে পাহাড়ী সশস্ত্র সন্ত্রাসী দল বিইউটি ইটভাটা হতে দাবীকৃত চাঁদার ৭ লক্ষ টাকা নেয়ার জন্য ঘেরাওপাড়া এলাকায় আগমন করবে এমন তথ্যের ভিত্তিতে রোয়াংছড়ি আর্মি ক্যাম্পের লেঃ ফারহান এর নেতৃত্বে একটি টহল দল বের হয়।

সূত্র জানায়, সেনাবাহিনী দলটি ঘেরাওপাড়া এলাকায় গমন করলে সশস্ত্র পাহাড়ী সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে সেনাবাহিনীও পাল্টা গুলি করে। এসময় পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের এলোপাথাড়ি গুলিতে একই পাড়ার হ্লা নু অং মার্মার ছেলে ক্য সিং অং মার্মা (১৫) এর বাহুতে গুলিবিদ্ধ হয়। সেনাবাহিনীর টহল দলটি আহত ব্যক্তিকে দেখতে পেয়ে সন্ত্রাসীদের পিছু ধাওয়া না করে তাকে উদ্ধার করে ইটের ট্রাকে করে রোয়াংছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

সেনাবাহিনীর উপস্থিতিতে আহত ব্যক্তিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। আহতের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় একইদিন তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়।এদিকে রোয়াংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম জানান, আজ ময়নাতদন্ত্র শেষে পরিবারকে লাশ বুঝিয়ে দেওয়া হবে।