আজকে ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ | | সময়ঃ-০২:২৭ অপরাহ্ন    

Home » প্রতিরক্ষা

প্রতিরক্ষা

বান্দরবান সেনা রিজিয়ন এর বই বিতরণ

বান্দরবান অফিসঃ- বান্দরবান সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ প্রতিষ্ঠিত ভাগ্যকুল-কদুখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বান্দরবান সেনা রিজিয়ন এর পক্ষ থেকে বই বিতরণ করা হয়েছে।গতকাল মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) দুপুর বারোটায় বিদ্যালয়ের শ্রেণী কক্ষে এই বই বিতরণ করা হয়।বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন বান্দরবান সেনা রিজিয়ন এর জি-টু মেজর ইফতেখার হোসেন।এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাঙালী ছাত্র পরিষদ বান্দরবান জেলার সভাপতি মিজানুর রহমান,৩নং কদুখোলা ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য মালেক মেম্বার,বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের জেলা নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন।বিদ্যালয় এর সহকারী শিক্ষক মোঃহারুনের সঞ্চালনায় আয়োজিত বই বিতরণ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করে বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক সুমল দাশ।এসময় বিদ্যালয় এর ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর ৩৬জন গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেয়া হয়।এসময় বই বিতরণ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বান্দরবান সেনা রিজিওন এর জি-টু ইফতেখার হোসেন বলেন,এটি একটি মহৎ আয়োজন,এটা এক ধরনের মানব সেবাও বলা যায়,অনেক দরিদ্র পরিবার আছে যারা তাদের আদরের ছেলে মেয়েদের পড়াশোনা নিশ্চিত করতে বই কিনে দেওয়ার স্বাদ থাকলেও সামর্থের অভাবে সেটা তারা কিনে দিতে পারে না।সেই অভাবটাকে আজ বান্দরবান সেনা রিজিয়ন কিছুটা হলেও পুরুণ করলো।ছাত্র-ছাত্রীরা এই বই নিয়ে আরো বেশী উৎসাহ নিয়ে বিদ্যালয়ে লেখা পড়া করবে এটাই আমি আশা করি।এই ধরনের উদ্যোগ আগামীতে আরও বৃদ্ধি করা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন বান্দরবান সেনা রিজিয়নের এই উর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তা।এমন প্রতিশ্রুতি শোনে স্থানীয় অভিবাবকরা বান্দরবান সেনা রিজিয়ন কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে শোনা যায়।

সেনাবাহিনীকে বিতর্কিত করতে ছাত্র বেশধারীদের হামলার গুজব,ষড়যন্ত্রে সক্রিয় কুচক্রী মহল

ডেস্ক রিপোর্টঃ-  ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী মেইল ট্রেনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর রিজার্ভ করা একটি বগিতে কিছু ছাত্র বেশধারী অনুপ্রবেশকারী প্রবেশের চেষ্টা চালায়। বিনা টিকেটি রিজার্ভ করা বগিতে উঠতে নিষেধ করলে বাকবিতণ্ডার জেরে রেল কর্মকর্তা ও সেনাবাহিনীর সদস্যদের উপর হামলা চালায় ছাত্র বেশধারী অবৈধ অনুপ্রবেশকারীরা। পরবর্তীতে সেনাবাহিনীর যাবতীয় অর্জনকে ম্লান করে দিতে কিছু কুচক্রী মহলের নির্দেশে রাজধানীর বিমানবন্দর স্টেশনে আন্দোলন-অনশনের নামে সাধারণ যাত্রীদের হয়রানি করারও অভিযোগ উঠেছে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) দিবাগত রাতে ঢাকা- চট্টগ্রামগামী মেইল ট্রেনের ‘ঝ’ বগিতে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, টিকিট বিহীন অবৈধ যাত্রীদের কর্তব্যরত নিরাপত্তারক্ষীরা বারবার অনুরোধ করেন রিজার্ভ বগিতে না উঠতে এবং টিকিট কেটে নির্ধারিত বগিতে ভ্রমণ করতে। তখন সেসব টিকেট বিহীন যাত্রী ট্রেন থেকে নামতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সেনাবাহিনীর রিজার্ভ করা ‘ঝ’ বগিতে কর্তব্যরতদের ওপর হামলা চালান। হামলার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থীও সামান্য আঘাতপ্রাপ্ত হন বলে একটি পক্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা গুজব রটিয়ে দেয়। পাশাপাশি ফেসবুকের বিভিন্ন পোস্টে দাবি করা হয় যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের জোর করে ট্রেন থেকে নামিয়ে দেয়া হয় এমনকি তাদের মারধরও করা হয়েছে। অথচ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। রেলওয়ে ও সেনাবাহিনীর মতো রাষ্ট্রীয় সেবায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানকে বিতর্কিত করে এদের সম্মান ক্ষুণ্ণ করতেই এসব করছে ছাত্র নামধারী কুচক্রী মহলের সদস্যরা।

আরো জানা যায়, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব রটিয়ে সেনাবাহিনীর ভাবমূর্তি নষ্ট করার প্রয়াস চালাচ্ছে একটি পক্ষ। পক্ষটি সেনাবাহিনীর নামে মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের উত্তেজিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। একটি রাজনৈতিক মহলের ইশারায় গুজব ছড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে ঢাকা-চট্টগ্রামগামী মেইল ট্রেনে কর্মরত এক কর্মকর্তা জানান, প্রতিদিনই কিছু কিছু অবৈধ টিকেট বিহীন যাত্রী যাতায়াত করার প্রয়াস চালান। যা নতুন কিছু নয়। সেনাবাহিনীর সদস্যদের জন্য রিজার্ভ রাখা হয়েছিল ট্রেনের ‘ঝ’ বগিটি। রাতে হঠাৎ কিছু টিকেট বিহীন যাত্রী সেখানে উঠে সমস্যার সৃষ্টি করেন। তাদের বারবার নেমে যেতে বললেও তারা নামতে অস্বীকৃতি জানায়। নামতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তারা ট্রেনে কর্মরত নিরাপত্তা কর্মী ও আমাদের উপর হামলা চালায়। অথচ এখন মিথ্যাচার করা হচ্ছে যে আমরাই নাকি তাদের উপর আক্রমণ করেছি। এগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা ও গুজব। রেলওয়ে ও সেনাবাহিনীকে সাধারণ মানুষের সামনে খারাপ ভাবে উপস্থাপন করতেই বিষয়টিকে বাড়িয়ে বলা হচ্ছে। এগুলো ঠিক না। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ও গৌরবের জায়গাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে কেউ লাভবান হতে পারবে না।

ঘটনার রাতের এক প্রত্যক্ষদর্শী চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার এক স্থানীয় ব্যবসায়ী সেলিম রহমান বলেন, ঢাকা- চট্টগ্রামগামী মেইল ট্রেনে টিকেট বিহীন কিছু যাত্রী সেনা সদস্যদের জন্য রিজার্ভ করা ‘ঝ’ বগিতে উঠলে সমস্যার সৃষ্টি হয়। সেখানে দু’একজন ঢাবির শিক্ষার্থী ছিল বলেও শুনেছি। ট্রেনে কর্মরত নিরাপত্তারক্ষীরা ঐ বগি থেকে টিকেট বিহীন যাত্রীদের নেমে যেতে বললে সেখানে হাতাহাতির সূত্রপাত হয়। সাধারণ যাত্রীরাও না বুঝে অনেকে প্রতিবাদ জানিয়ে সমস্যাকে আরো জটিল করে তুলেন। আসলে মিথ্যার আড়ালে সত্য ঘটনাকে লুকাতে ছাত্র নামধারী কিছু যুবক এসব করেছে।

সেলিম রহমান আরো জানান, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব রটিয়ে একটি পক্ষ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থী প্রকৃত ঘটনা না জেনে বিভ্রান্ত হয়ে অনশনে বসেছেন যা খুব-ই দুঃখজনক। রেলওয়ে ও সেনাবাহিনী কখনই শিক্ষার্থীদের বিপক্ষে নয়। আপনাকে তো আইন মানতে হবে। আইন অমান্য করে অন্যায়ভাবে দাবি করলে তো সে দাবির প্রতি কেউ সমর্থন দিবে না। এটাই সত্য।

বান্দরবান সেনা রিজিয়নের আয়োজনে চক্ষু সেবা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

বান্দরবানঃ – “তীক্ষ্ণ দৃষ্টি,সুন্দর জীবন” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বান্দরবানে সেনা রিজিয়নের আয়োজনে বিনামুল্যে চক্ষু সেবা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।আজ সোমবার (২৫ মার্চ) সকালে বান্দরবান সেনা রিজিয়নের আয়োজনে সদর হাসপাতাল ও চট্টগ্রাম লায়ন্স চক্ষু হাসপাতালের সহযোগিতায় ৭ ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্স প্রাঙ্গনে বিনামুল্যে এই চক্ষু সেবা কার্যক্রম শুরু হয়।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিনামুল্যে চক্ষু সেবা কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন সেনাবাহিনীর বান্দরবান রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্দকার মো:শাহিদুল এমরান এএফডব্লিউসি,পিএসসি।এসময় অনুষ্ঠানে জোন কমান্ডার এস এম আব্দুল্লাহ আল আমীন পিএসসি,জি টু আই মেজর মো:ইফতেখার হোসেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার,সিভিল সার্জন ডা:অংশৈপ্রু মারমা,চট্টগ্রাম লায়ন্স চক্ষু হাসপাতালের ডা.শফিকুল ইসলাম ভুইয়া,ডা.বেলাল উদ্দিন খান,ডা.কথক দাশ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।এসময় জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন অসহায় ও দুস্থ জনসাধারণ লাইনে দাড়িয়ে বিনামুল্যে চক্ষু সেবা,ঔষধ ও চশমা গ্রহণ করে।আয়োজকেরা জানান,সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে প্রতিবছরই বিভিন্ন অসহায় ও দুস্থ জনসাধারণকে বিনামুল্যে বিভিন্ন চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে এবং আগামীতেও এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

বান্দরবানে সেনাবাহিনীর ত্রাণ সহায়তা প্রদান

নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবান সেনা জোন এর আওতায় বান্দরবান বাজারের বোটঘাটায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করলো বান্দরবান সেনা জোন।শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় ২৬ বীর বান্দরবান সেনা জোন এর পক্ষ থেকে বান্দরবান বাজারের বোটঘাটায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে এই ত্রাণ সহায়তা প্রদান করা হয়।এসময় ২৬ বীর বান্দরবান সেনা জোন এর ওয়ারেন্ট অফিসার মো:ফজলুর হক,বান্দরবান পৌরসভার মহিলা কাউন্সিলর সালেহা বেগম,জোন এনসিও সার্জেন্ট আল-আমিন ও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় ২৬ বীর বান্দরবান সেনা জোন এর পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে শীতের কম্বল ও খাবার সামগ্রী প্রদান করা হয়।প্রসঙ্গত, শুক্রবার ভোররাতে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে বান্দরবান বাজারের বোটঘাটায় একটি বরফ কারখানা ও পাচঁটি কাচাঘর পুঁেড় ছাই হয়ে যায় এবং ঘটনার পরপরই ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাড়ায় সেনাবাহিনীর সদস্যরা।

শারীরিক সুস্থতায় ক্রীড়ার কোন বিকল্প নেই: মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং

বান্দরবান অফিসঃ-পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, লেখাপড়ার পাশাপাশি শারীরিক সুস্থতার জন্য ক্রীড়ার কোন বিকল্প নেই। শারীরিক প্রশান্তি ও মানসিক উন্নয়নে ক্রীড়া অগ্রনী ভুমিকা পালন করে। এছাড়াও খেলাধুলার মাধ্যমে একটি শিশুকে একজন সুশৃংঙ্খল জাতিতে পরিনত করা যায়, খেলাধুলা মানুষকে শৃংঙ্খলা ও সহানুভুতিতা শেখায়। তাই প্রতিটি মানুষের জীবন গঠনে পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলার পরির্”চা অপরিসীম।এসময় পার্বত্য মন্ত্রী আরো বলেন, লেখা পড়ার পাশাপাশি শারীরিক সুস্থতার জন্য ক্রীড়ার কোন বিকল্প নেই। শারীরিক প্রশান্তি ও মানসিক উন্নয়নে ক্রীড়া অগ্রনী ভুমিকা পালন করে। নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা-২০১৯ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী গতকাল শনিবার বিকালে কলেজ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।শান্তির প্রতীক শ্বেত কপোত এবং বেলুন উড্ডয়নের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয়। বিএনসিসির চৌকস ক্যাডেট, গার্ল গাইডস সমূহ, ফুল দৌড়, দৃষ্টিনন্দন রিলে সহ কয়েকটি ইভেন্টের প্রতিযোগিতা, ভিভিআইডি অতিথিদের অংশগ্রহণে গলফ খেলা অনুষ্ঠিত হয়।প্রতিষ্ঠানের তায়কোয়ান্দো দলের চমকপ্রদ শারীরিক কসরত এবং ডিসপ্লে দলের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনায় দর্শক মন্ত্রমুগ্ধ হয়। ডিসপ্লেতে নজরুল হাউজ আবহমান বাংলার সংস্কৃতি, শহীদুল্লাহ হাউজ মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ এবং বরকত হাউজ ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠির সংস্কৃতিক সুনিপুণভাবে ফুটিয়ে তোলে।এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পর্ষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লেঃ কর্ণেল এস এম আব্দুল্লাহ আল-আমিন, পিএসসি।স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ লে: কর্ণেল মো: রেজাউল ইসলাম পিএসসি, পিএইচডি, এইসি।এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলী হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আবু হাসান সিদ্দিক, বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাশ, সদস্য মো: মোজাম্মেল হক বাহাদুর, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক এম আব্দুল আজিজ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মোহাম্মদ ইয়াছির আরাফাত, প্রেসক্লাবের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বাচ্চু, মাসিক নীলাচল পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক আলহাজ¦ মোহাম্মদ ইসলাম কোম্পানী সহ পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি বিজয়ী হাউস ও বিভিন্ন ইভেন্টের খেলা প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

আলীকদম সেনা জোনের উদ্যোগে শীতবস্ত্র,ক্রীড়া সামগ্রী,ঔষধ বিতরণ ও ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প

আলীকদম,বান্দরবানঃ-আলীকদম জোনের উদ্যোগে মুরুং কমপ্লেক্স আবাসিক ছাত্রদের মাঝে শীতবস্ত্র, ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ, ফ্রি চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান করা হয়েছে। রবিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে বাস স্টেশন সংলগ্ন মুরুং কমপ্লেক্সে এই বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

একই দিন আলীকদম জোন সদরে লামা-আলীকদমের বিভিন্ন সামাজিক-ক্রীড়া সংগঠনের মাঝে বিনোদন সামগ্রী হিসেবে ৫টি টেলিভিশনও বিতরণ করা হয়। শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল সাইফ শামীম পিএসসি ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বলেন, মেধাবীদের পাশে আলীকদম জোন সর্বদা আছে এবং থাকবে। এসময় জোন কমান্ডার মুরুং আবাসিকের ছাত্রদের নানা বিষয়ে খোঁজ খবর নেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, ভারপ্রাপ্ত জোনাল স্ট্যাফ অফিসার মেজর মোয়াজ্জম হোসেন, ডাক্তার মেজর হাবিবা, ডাক্তার ক্যাপ্টেন মো: আসিফ, জোন জেসিও ইহসান উল্লাহ, সাংবাদিক মো.কামরুজ্জামান, আবাসিক পরিচালক ইয়ংলক মুরুং, বাসস্টেশন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিয়াবুল সহ প্রমূখ।

লে. কর্নেল হলেন চার নারী মেজর

সিএইচটি টাইমস নিউজ,বান্দরবানঃ – বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের চার নারী মেজর পদোন্নতি পেয়েছেন লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদে। এরা হলেন মেজর সানজিদা হোসেন, আর্টিলারি; মেজর সৈয়দা নাজিয়া রায়হান, আর্টিলারি; মেজর ফারহানা আফরীন, আর্টিলারি ও মেজর সারাহ্ আমির, ইঞ্জিনিয়ার্স।

বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) সেনাবাহিনী সদরদপ্তরে বাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ পদোন্নতিপ্রাপ্তদের র‌্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দেন। এসময় উর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর নারীর ক্ষমতায়নের অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে ২০০০ সাল থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দীর্ঘমেয়াদী কোর্সে নিয়মিতভাবে নারী অফিসার নিয়োগ করা হচ্ছে। ৪৭তম দীর্ঘমেয়াদী কোর্স থেকে শুরু হওয়া এসব নারী অফিসাররা ইতোমধ্যেই নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে পেশাগত দক্ষতা প্রদর্শনে সফল হয়েছেন। তাদের এই সক্ষমতার অংশ হিসেবে চারজন নারী অফিসারকে মেজর হতে লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে যে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছেন, সেনাবাহিনীতে দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের নারী অফিসারদের লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদে পদোন্নতি প্রদানের মাধ্যমে সেই পদক্ষেপে আরও এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো বলে উল্লেখ করা হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষায় প্রশংসিত বাংলাদেশ-সেনাবাহিনী,অনন্য উচ্চতায় শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্কঃ- জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে অনেক আগে থেকেই প্রশংসিত বাংলাদেশ। সেই প্রশংসাকে আরও মহিমান্বিত করেছেন জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল জিন পিয়ের ল্যাক্রিক্স। তিনি শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন।

নেদারল্যান্ডস ও রুয়ান্ডার যৌথ আয়োজনে হেগে দুই দিনব্যাপী ‘শান্তিরক্ষায় প্রস্তুতিমূলক সম্মেলনে’ শান্তি মিশনে বাংলাদেশের ভূমিকার এই প্রশংসা করেন বলে হেগের বাংলাদেশ দূতাবাস এ তথ্য জানিয়েছে।

সম্মেলনে রাষ্ট্রদূত বেলাল জাতিসংঘ শান্তিরক্ষায় বাংলাদেশের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি বিশ্ব শান্তি ও স্থিতিশীলতা জোরদারের জন্য জাতিসংঘের আহ্বানের প্রতিক্রিয়ায় সৈন্য ও পুলিশ পাঠিয়ে অবদান রাখার বিষয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত অঙ্গীকারের কথাও পুনর্ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ সফরের কথা স্মরণ করে আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ল্যাক্রিক্স বলেন, সৈন্য ও পুলিশ পাঠিয়ে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

বার্তা সংস্থা ইউএনবির এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, বাংলাদেশের রাজেন্দ্রপুর সেনানিবাসে অবস্থিত শান্তিরক্ষা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস সাপোর্ট অপারেশন ট্রেনিং (বিপসট)-এর মানসম্মত প্রশিক্ষণের প্রশংসাও করেন ল্যাক্রিক্স।

এছাড়া শান্তিরক্ষা কার্যক্রমবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ল্যাক্রিক্স বিভিন্ন দেশের বেসামরিক জনগণের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আরো বেশি মনোযোগ প্রদানের ইচ্ছে প্রকাশ করেন।

এর আগে ডাচ পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টেফ ব্লক, ডাচ প্রতিরক্ষামন্ত্রী আঙ্ক বিজলিভেল্ড ও জিন পিয়ারি ক্যারাব্যারাঙ্গা, ন্যাদারল্যান্ডস ও স্মেইল চেরুগিতে নিযুক্ত রুয়ান্ডার রাষ্ট্রদূত, আফ্রিকান ইউনিয়নের শান্তি ও নিরাপত্তাবিষয়ক কমিশনার যৌথভাবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

শান্তিরক্ষাবিষয়ক প্রস্তুতিমূলক এ সম্মেলনে বাংলাদেশসহ বিশ্বের প্রায় ৭০টি দেশ যোগ দেয়। আর সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলকে নেতৃত্ব দেন রাষ্ট্রদূত শেখ মোহাম্মাদ বেলাল।

বান্দরবান সেনাবাহিনী কতৃক শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান,উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসা সহায়তা ও শীতার্থদের জন্য শীতবস্ত্র বিতরণ

নিউজ ডেস্কঃ-বান্দরবান সেনা জোন এর আওতায় বান্দরবানের গরীব অসহায় শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান,নিস্ব:ব্যক্তিদের উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসা সহায়তা ও শীতার্থদের জন্য শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।সোমবার সকালে বান্দরবান সেনা জোন এর আয়োজনে জোন কমান্ডারের কার্যালয় প্রাঙ্গনে এই শিক্ষা-চিকিৎসা সহায়তা ও শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। এসময় গরীব অসহায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য আর্থিক অনুদান প্রদান, উন্নত চিকিৎসার জন্য আর্থিক অনুদান প্রদান ও বান্দরবানের বিভিন্ন এলাকার শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।অনুষ্ঠানে বান্দরবান সেনা জোন (২৬ বীরের) জোন কমান্ডার লে:কর্ণেল এস এম আব্দুল্লাহ আল-আমিন (পিএসসি), জোন উপ-অধিনায়ক মেজর জাহিদুল ইসলাম, জোনাল স্টাফ অফিসার মেজর,মো:আল-জাবির আসিফ, এস এম মো:কামিরুল ইসলাম, সার্জেন্ট আল আমিনসহ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদ মর্যাদার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।এসময় জোন কমান্ডার লে:কর্ণেল এস এম আব্দুল্লাহ আল-আমিন (পিএসসি) উপস্থিত গরীব ও অসহায়দের শিক্ষা-চিকিৎসা সহায়তা এবং শীতার্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন এবং বলেন, সেনাবাহিনী দুর্গম পাহাড়ে বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ করে যাচ্ছে এবং আগামীতে এই উন্নয়ন কর্মকান্ড চলমান থাকবে।

সেনাবাহিনীর নামে ভুয়া ওয়েবসাইট–ফেসবুক পেজ–ইউটিউব চ্যানেলের বিষয়ে সতর্কবার্তা

নিউজ ডেস্কঃ-আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও সেনাবাহিনীর বিভিন্ন সংস্থার নামে ভুয়া (Fake) ওয়েবসাইট, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহার করে মিথ্যা তথ্য ও প্রোপাগান্ডা প্রচারের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর সুনাম ক্ষুণ্ন করার অপচেষ্টা চলছে।

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) ওয়েবসাইটে আজ রোববার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের নাম: Bangladesh Army, লিংক: https://www.army.mil.bd এবং Join Bangladesh Army লিংক: https://joinbangladesharmy.army.mil.bd। সেনাবাহিনীর ফেসবুক পেজের নাম: Bangladesh Army, লিংক: https://www.facebook.com/bdarmy.army.mil.bd ও ইউটিউব চ্যানেলের নাম: Bangladesh Army, লিংক: https://www.youtube.com/channel/UCpkg5 RjtYqjRbxwL9 Gf5 Tfw। এগুলো ব্যতীত অন্যান্য সকল ভুয়া (Fake) ওয়েবসাইট/ফেসবুক পেজ/ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য ও প্রোপাগান্ডার ব্যাপারে জনসাধারণকে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করা হলো।

একই সঙ্গে সর্বসাধারণকে সেনাবাহিনী সম্পর্কে ভুয়া তথ্য সংবলিত পোস্ট শেয়ার করা থেকে বিরত থাকার জন্যও অনুরোধ করা হলো।