বিষয় :

শুভ জন্মদিন অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান


আসিফ মাহমুদ (চট্রগ্রাম) প্রকাশের সময় :১৫ মে, ২০১৯ ৯:২৫ : অপরাহ্ণ

আজ সন্দ্বীপ অঞ্চলে সর্বাধিক পাঠকপ্রিয় ‘সাপ্তাহিক আলোকিত সন্দ্বীপ’ পত্রিকার সম্পাদক- অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খানের জন্মদিন।

একনজরে অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান-

জন্ম-১৯৭৭ সালের ১৫ মে।পিতা-হাজী আবদুল বাতেন সত্তদাগর। মাতা-হাজী সখিনা বেগম।

শিক্ষাগত যোগ্যতা-বিএসএস (অনার্স), এমএসএস (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

পেশা- সাবেক অধ্যক্ষ (ভারপাপ্ত), আবুল কাসেম হায়দার মহিলা কলেজ, সন্দ্বীপ।
অধ্যক্ষ-লরিয়েট কলেজ, চট্টগ্রাম।

সন্দ্বীপে শিক্ষার গুনগত মানোন্নয়নে তাঁর উদ্যোগ-

আলোকিত সন্দ্বীপ মেধাবৃত্তি প্রতিযোগিতা (৫ম শ্রেণী, ২০১৩ থেকে চলমান)
আলোকিত সন্দ্বীপ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ( ৪র্থ শ্রেণী,২০১৪ থেকে চলমান)
আলোকিত সন্দ্বীপ হাতের লেখা প্রতিযোগিতা (৫ম শ্রেণী, ২০১৫ থেকে চলমান)।
মাধ্যমিক স্তরে জিপিএ- অর্জনকারী ৫ কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান (২০১৮ থেকে চলমান)।

তাঁর সাংগঠনিক পরিচয়-
সভাপতি- সন্দ্বীপ অনলাইন প্রেসক্লাব।
সভাপতি- সন্দ্বীপ লেখক ফোরাম।
সভাপতি- চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাব।
চেয়ারম্যান- কবি আব্দুল হাকিম ফাউন্ডেশন।
সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি-সন্দ্বীপ প্রেস ক্লাব।
সাধারণ সম্পাদক-বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, সন্দ্বীপ।
সাবেক সাধারণ সম্পাদক-মাস্টার ছায়েদুল হক ফাউন্ডেশন (২০১০-২০১৬)।

রাজনীতি- কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান, এনপিপি।
সাবেক ছাত্রনেতা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাবেক সভাপতি-এনপিপি, চট্টগ্রাম মহানগর ও চট্টগ্রাম জেলা।
সাবেক সভাপতি-জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম, চট্টগ্রাম মহানগর।

সন্দ্বীপবাসীর সেবায় তাঁর অনন্য কীর্তি-
পড়ালেখা শেষ করে জন্মভূমি সন্দ্বীপ এসেই অধ্যাপনা শুরু করেন আবুল কাসেম হায়দার মহিলা কলেজে। সেখানে তিনি ২০০৩ সাল থেকে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর অবধি বিভিন্ন মেয়াদে অধ্যক্ষ হিসেবে শক্ত হাতে কলেজ পরিচালনা করে খ্যাতি লাভ করেন। একই সাথে সাংবাদিকতাসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে নিয়োজিত ছিলেন এবং আছেন।

সন্দ্বীপ জনপদে তিনি একজন শিক্ষক, সাংবাদিক, সৃজনশীল উদ্যোক্তা হিসেবে যেমন পরিচিত তেমনি সমাধিক পরিচিত একজন সমাজকর্মী হিসেবে। সমাজের নানা স্তরে রয়েছে তাঁর বিভিন্ন কার্যক্রম। বিশেষ করে শিক্ষাখাতে তাঁর অন্যরকম এক পদচারনা বিদ্যমান। তাঁরই উদ্যোগে সন্দ্বীপে প্রথম বহুনির্বাচনী ভিত্তিক প্রতিযোগীতামূলক বৃত্তি কার্যক্রম শুরু হয় মাস্টার ছায়েদুল হক বৃত্তি কর্মসূচির ব্যানারে। সাপ্তাহিক আলোকিত সন্দ্বীপ-এর ব্যানারেও রয়েছে চমকপ্রদ চারটি বৃত্তি কর্মসূচি।

দৈনিক আজাদী-তে সন্দ্বীপ প্রতিনিধি হিসেবে তিনি দীর্ঘ ১২ বছরেরও বেশী সময় ধরে সন্দ্বীপবাসীর সকল অধিকার নিয়ে লিখে গেছেন অবিরত। এছাড়া দৈনিক সমাচার, দৈনিক আমার দেশ, দি গার্ডিয়ান, টিভি চ্যানেল এনটিভি তে কাজ করেছেন বহু বছর। বারবার তুলে এনেছেন সন্দ্বীপের ই নানা সমস্যা ও দুর্দশার কথা তাঁর লেখা ও প্রতিবেদন। কখনো প্রশাসনের টনক নড়েছে, কখনো নেমে এসেছে খড়গ। তবু কলম বন্ধ হয়নি। লিখে গেছেন অবিরত দ্বীপবাসীর স্বার্থে। স্বল্প সময়ে চট্টগ্রাম পৌঁছানোর মাধ্যম গুপ্তচড়া-কুমিরা ঘাটেও ছিলেন দীর্ঘদিন অবাঞ্চিত।

নানা আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রনায়ক সাবেক ছাত্রনেতা অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান ভয়-ঢরহীন লড়ে গেছেন অবিরত। কাগজে-কলমে সরব ছিলেন নিয়মিত, আবার ছিলেন রাজপথেও। সন্দ্বীপ রহমতপুরে নাদিয়া হত্যা, গুপ্তচরা ঘাটের রাজা কাসেম বিরোধী আন্দোলন সংগ্রাম গুলোই কালের স্বাক্ষী।

যখন ভূমি দস্যুরা সন্দ্বীপের জেগে উঠা ভূমি দখল করার পাঁয়তারা করেছে তখনি আন্দোলনে নেমে পড়েছেন। প্রথমে ‘বাটাজোড়া-কাটগড় বাঁচাও আন্দোলন’ পরবর্তীতে ‘সন্দ্বীপ ভূমি রক্ষা আন্দোলন’এর ব্যানারে সংগঠিত করেছেন দেশ – বিদেশের সন্দ্বীপবাসীদের।

২ এপ্রিল ২০১৭ সংঘটিত গুপ্তচড়া ট্রাজেডি নিয়ে যখন চারপাশে শুনশান নীরবতা তখনি নিজ সম্পাদিত সাপ্তাহিক আলোকিত সন্দ্বীপ ২০ এপ্রিল ২০১৭ প্রকাশিত সংখ্যায় ১৮ জন মৃত ব্যক্তির অফিসিয়াল ছবি সমেত বিশেষ সংখ্যা ছাপিয়ে করেছেন কাগজী প্রতিবাদ। কাগজী প্রতিবাদে থেমে থাকেননি প্রতিবাদী ও অন্যায়ে আপোষহীন অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান।

‘সন্দ্বীপ অধিকার আন্দোলন’-এর ব্যানারে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন পরবর্তীতে মানববন্ধনে জনপ্রতি কোটি টাকা ক্ষতিপূরণও দাবি করেছেন। যদিওবা জীবনের মান টাকা দিয়ে হয় না।

সর্বোপরি, সুন্দর ও প্রাণবন্ত হোক আপনার আগামীর প্রতিটি সূর্যোদয়। চাঁদের আলোতে উদ্ভাসিত হোক আপনার জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত।

আপনার সততা, নিষ্ঠা, সৃজনশীলতা, সামাজিক দায়বদ্ধতা আপনাকে আরো অনেক দূর নিয়ে যাবে; ইনশাল্লাহ।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ



আর্কাইভ
জুন ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
আলোচিত খবর