বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়াকে বিশাল গণ-সংবর্ধনা দিচ্ছে সাচিং প্রু জেরী সমর্থকরা


প্রকাশের সময় :২৯ অক্টোবর, ২০১৭ ২:০৪ : পূর্বাহ্ণ

সিএইচটি টাইমস নিউজ ডেস্কঃ-আজ রবিবার কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের দেখতে যাওয়ার সময় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানাতে সকল প্রস্তুুতি সম্পন্ন করেছে বান্দরবান জেলা বিএনপির অন্যতম দিকপাল,কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য সাচিং প্রু জেরী।সাচিং প্রু জেরীর নেতৃেত্বে কয়েক হাজার নেতাকর্মী ১১টি স্পটে অবস্থান নিয়ে অালাদা-অালাদাভাবে দলীয় প্রধানকে শুভেচ্ছা জানাতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বলে নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে।দলীয় প্রধানকে শুভেচ্ছা জানাতে প্রস্তুত সাচিং প্রু জেরীর নেতৃত্বাধীন বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।এজন্য সাচিং প্রু জেরীর উপস্থিতিতে দফায় দফায় সভা করে দলের বিভিন্ন অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের করনীয় নির্ধারন করে দেয়া হয়েছে।বান্দরবান জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক দৌলতুল কবির খান সিদ্দিকী দৌলত উপরোক্ত বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছেন।এবিষয়ে তিনি সিএইচটি টাইমস ডটকমকে জানান,আমাদের সকলের প্রানপ্রিয় নেতা-সাবেক সাংসদ বোমাং রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরীর নেতৃত্বে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া’কে বান্দরবান জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানাতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বান্দরবান জেলা বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।একই বিষয়ে বান্দরবান জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট হাবিবুর রহমান হাবিব সিএইচটি টাইমস ডটকমকে জানান,বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার আগমনকে কেন্দ্র করে বান্দরবানের বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।পাশাপাশি নেত্রীর অপেক্ষায় আমাদের অভিবাবক-জননেতা সাচিং প্রু জেরীর নেয়া নানাবিধ উদ্যোগ ও দিকনির্দেশনার কারনে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীদের মধ্যে একপ্রকার চাঁদনি রাতের আবেশ লক্ষ্য করছি।খোঁজ নিয়ে জানা যায়,সারা জেলা জুড়ে বিশেষ করে কেরানিহাট থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত জেরী সমর্থকদের ব্যানারে ব্যানারে ছেয়ে গেছে কক্সবাজার যাওয়ার একমাত্র সড়কটি।বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য,সাবেক সাংসদ রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরীর নেতৃত্বে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া’কে বান্দরবান-কক্সবাজার রোডের মধ্যবর্তী ৯টি স্পটে জেলা বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকরা অবস্থান নিয়ে নেত্রীকে গণ সংবর্ধনা ও শুভেচ্ছা জানানোর কথা থাকলেও বান্দরবান জেলাধীন গুরুত্বপূর্ন ইউনিয়ন এবং বিএনপির ঘাটি হিসেবে পরিচিত আজিজনগরের ১নং গেইট এলাকায় সাচিং প্রু জেরী সমর্থকদের স্থাপন করা শহীদ জিয়া,বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত ব্যানার চুরির প্রতিবাদে সাচিং প্রু জেরীর তাৎক্ষণিক নির্দেশে নতুন করে আরও দুটি স্পটে নেতাকর্মীদের অবস্থান করতে জেলা থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।পূর্ব নির্ধারিত স্পট গুলো হলো যথাক্রমে কেরানীহাট রাস্তার মাথা,পদুয়া,আজিজনগর,ফাইতং, লামারমুখ,ফাসিঁয়াখালী,নাইক্ষংছড়ি,বালুখালি, কুতুপালং,পরে নতুন করে সংযুক্ত করা হয় মালুমঘাট ও হাঁসের দিঘী স্পট।নতুন এই ২ স্পটে আলিকদম উপজেলা বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে অবস্থান নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানানোর নির্দেশ প্রদান করেন বান্দরবান জেলা বিএনপির কান্ডারী সাচিং প্রু জেরী।এদিকে শহীদ জিয়া,খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত ব্যানার চুরির প্রতিবাদে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেছে জেরী সমর্থিত নেতাকর্মীরা।ব্যানার চুরির ঘটনা জানাজানি হবার সাথে সাথেই সামাজিক গনযোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যানার চুরির সাথে জড়িত ম্যামাচিং সমর্থকদের দায়ী করে তুলোধুনো করে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বিভিন্ন পোষ্ট এবং স্ট্যাটাস দিচ্ছে দলীয় ফেসবুক ব্যাবহারকারী নেতাকর্মীরা।মূলত ম্যামাচিং এর ইন্ধনে বান্দরবান জেলাধীন আজিজনগরের ১নং গেইট থেকে সাচিং প্রু জেরীর নির্দেশে আজিজনগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ কতৃক স্থাপিত শহীদ জিয়া,বেগম জিয়া এবং তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত ব্যানার চুরি করা হয় বলে অভিযোগ তুলেছেন জেরী সমর্থকরা।ইতিমধ্যে ব্যানার চুরির সাথে সংশ্লিষ্ট কয়েকজন এর নামও প্রকাশ হয়ে পরেছে।আর যাদের নাম প্রকাশ হয়েছে তাদের প্রত্যেকেই ম্যামাচিং এর ঘনিষ্ঠ সমর্থক হিসেবে আজিজনগর এলাকায় সুপরিচিত বলে তথ্য সুত্র নিশ্চিত করেছে।ব্যানার চুরির ঘটনায় নেতা কর্মীদের মাঝে হালকা উত্তেজনা বিরাজ করলেও বান্দরবান জেলা বিএনপির কান্ডারী সাচিং প্রু জেরী নির্ধারিত ১১টি স্পটের কোন এলাকায় কার নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা নেত্রীকে সংবর্ধনা ও শুভেচ্ছা জানাবে তার সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা লিখিত এবং মৌখিকভাবে নেতাকর্মীদের প্রত্যেক কে ইতিমধ্যে জানিয়ে দেয়া হয়েছে।বান্দরবান বিএনপি সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়,শুরুতেই বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক সাংসদ রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরী ও জেলা বিএনপির প্রভাবশালী সহসভাপতি আব্দুল কুদ্দুছ চেয়ারম্যান এর নেতৃত্বে বান্দরবান জেলা বিএনপি,ছাত্রদল,যুবদল,মহিলাদল, তাতীদলসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা কেরানিহাট চৌরাস্তার মাথায় অবস্থান নিয়ে নেত্রীকে বান্দরবান পার্বত্য জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানাবে।পরে ক্রমান্বয়ে থানছি উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান খামলাই ম্রো ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান পূর্ণ চন্দ্র ম্রো এর নেতৃত্বে পদুয়াতে,সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জেলা বিএনপির সিনিয়র নেতা আলহাজ্ব নাজেমুল ইসলাম চৌধুরী ও রফিকুল ইসলাম খোকনের নেতৃত্বে আজিজ নগরে,সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সিনিয়র নেতা সামশুল ইসলামের নেতৃত্বে ফাইতংয়ে,লামা উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক মেয়র আমির হোসেন,লামা উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরীর নেতৃত্বে লামারমূখে, আলিকদম উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও আলিকদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম এর নেতৃত্বে মালুমঘাট ও হাঁসের দিঘীতে,ফাসিঁয়া খালী ইউপি চেয়ারম্যান জাকের হোসেন মজুমদার এর নেতৃত্বে ফাসিঁয়াখালীর প্রবেশমূখে,নাইক্ষংছড়ি উপজেলা সভাপতি নুরুল আলম কেম্পানী,ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাসেম এর নেতৃত্বে নাইক্ষংছড়ির প্রবেশমূখে এবং জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মুজিবুর রশীদ এর নেতৃত্বে বালুখালি ও কুতুপালং এ বান্দরবান জেলা,উপজেলা ও ইউনিয়ন বিএনপি নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণ অবস্থান নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সাচিং প্রু জেরীর পক্ষ থেকে গন সংবর্ধনা ও শুভেচ্ছা জানাবে।প্রতিটি স্পটের সমন্বয়কারী হিসেবে বিশেষ দায়িত্ব পালন করবেন যথাক্রমে বান্দরবান জেলা ছাত্রদল সিনিয়র সহসভাপতি হাবিবুর রহমান,বান্দরবান জেলা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক দৌলতুল কবীর খান সিদ্দিকী দৌলত,বান্দরবান পৌর বিএনপি সিনিয়র সহসভাপতি ফেরদৌস হায়দার রুশো সহ সাচিং প্রু জেরী কতৃক মনোনীত সিনিয়র নেতৃবৃন্দরা।সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বান্দরবান জেলা বিএনপির প্রভাবশালী সহসভাপতি আব্দুল কুদ্দুছ চেয়ারম্যান সিএইচটি টাইমস ডটকমকে এক প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন,বান্দরবানের ইতিহাসে এবারই প্রথম দেশনেত্রী কে শুভেচ্ছা জানাতে জেলার কয়েক হাজার নেতাকর্মী সাচিং প্রু জেরীর নেতৃত্বে কেরানিহাট-কক্সবাজার সড়কের মধ্যবর্তী মূল সড়ক এর ১১টি স্থানে অবস্থান নিয়ে নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানাবে।এর মধ্য দিয়ে বান্দরবান জেলা বিএনপি তথা বান্দরবান জেলা বিএনপির কান্ডারী সাচিং প্রু জেরী বান্দরবানে বিএনপির রাজনীতিতে কতটা অপরিহার্য তা প্রস্ফুটিত হবে।আমরা ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বরণ করে নিতে উন্মুখ হয়ে আছি।জেলা বিএনপির কান্ডারী বোমাং রাজপুত্র সাচিং প্রু জেরীর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে আমাদের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী,নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকরা ১১ টি স্পটে অবস্থান নিয়ে নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানাবে।এদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসার পথে বিএনপি প্রধানের গাড়ি বহরে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক দলের ক্ষুদ্র ও জাতিসত্বা বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম।এসময় তিনি উক্ত ঘটনার সাথে সরকার দলীয় ক্যাডারদের সম্পৃক্ততার অভিযোগ তুলে বলেন,সরকার এখন বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা দেখে দিশেহারা হয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ বেছে নিয়েছে।যেসব এলাকায় হামলা হয়েছে প্রতিটি হামলার সাথে স্থানীয় এমপিদের মদদ ছিলো এবং সেসব বিনাভোটে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের নির্দেশেই যুবলীগ-ছাত্রলীগ এর ক্যাডাররা এই ধরনের ধৃষ্টতা প্রদর্শন করেছে,সবচেয়ে দুঃখের বিষয় তাদের বর্বরোচিত হামলা থেকে সাংবাদিকরা পর্যন্ত নিস্তার পায়নি এবং বেশকয়েকজন জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন সংবাদপত্রে কর্মরত সাংবাদিক ভাইরা আহত হয়েছে,সাংবাদিক ভাইদের রক্তে রঞ্জিত হয়েছে দেশনেত্রীর গাড়ী বহর।এই ধরনের হামলার ঘটনা বাংলাদেশ এর রাজনীতির জন্য একটি অশনিসংকেত বলে আমি মনে করি।এসময় তিনি বান্দরবান জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সকল নেতাকর্মীকে রাস্তায় নেমে এসে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কে শুভেচ্ছা জানানোর আহবানও জানান।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ



আর্কাইভ
সেপ্টেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  
আলোচিত খবর
error: কি ব্যাপার মামা !!