বিষয় :

এলজিইডির ব্রীজ নির্মাণ কাজে ধীরগতিতে পার্বত্যমন্ত্রীর ক্ষোভ


বান্দরবান প্রতিনিধি প্রকাশের সময় :২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:৩৩ : পূর্বাহ্ণ

বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা এলাকায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) ’র বাস্তবায়নাধীন সাংগু নদীর উপর গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের কাজ ধীরগতি চলছে ,এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সকালে নির্মাণীধীন ব্রিজের কাজ পরিদর্শনে যান পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।এসময় পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি সাংগু নদীর উপর গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের কাজ ধীরগতি দেখে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) ও ঠিকাদারদের প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করে। মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি এসময় সকলের সামনে এলজিইডির কর্মকর্তা ও ঠিকাদারদের ব্রিজের চলমান কাজে ধীরগতির কারণ জানতে চায় এবং সঠিক সময়ে কাজ না হওয়ায় এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো:আবু তালেবকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।পরিদর্শনকালে উপস্থিত সাংবাদিকদের ক্ষোভের কথা জানান মন্ত্রী, তিনি বলেন হাজার হাজার মানুষ এই ব্রিজের আশায় রয়েছে। অথচ ঠিকাদার লাভ-লোকসান নিয়ে বসে আছে। ঠিকাদার মানুষের লাভের কথা চিন্তা না করলেও একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগণের কথা আমাকে চিন্তা করতে হয়। আমি ভোট পাই না পাই বড় কথা নয় ,সরকারের অর্থ নিয়ে নয়ছয় করার সুযোগ কারো নেই। সরকারি অর্থ দিয়ে জনগণের উন্নয়ন কাজ চলমান থাকে ,আর কিছু লোক সব সময় অনিয়ম করে জনগণকে ভোগান্তিতে ফেলে। এসময় মন্ত্রী বীর বাহাদুর বান্দরবানে সকল প্রতিষ্টানে যে সকল ঠিকাদার সঠিকভাবে কাজ করছে না তাদের তালিকা তৈরি ও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও নির্দেশ প্রদান করেন।পরিদর্শন কালে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো:আবুল কালাম,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলী হোসেন,আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল কান্তি দাশ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো:আবু তালেব,সিনিয়র সহকারি প্রকৌশলী এস এম জিল্লুর রহমান,সদর উপজেলা প্রকৌশলী মো:জামাল উদ্দিন,সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো:শহীদুল ইসলাম চৌধুরীসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।প্রসঙ্গত,সাধারণ জনগণের দাবির মুখে ২০১৬ সালের১২ ই মে ব্রিজটির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করা হয়। প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা ২০১৭ সালের মাঝামাঝিতে নির্ধারিত সময় পার হওয়ার পরও ব্রিজের অর্ধেক কাজও শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার। এই ব্রিজ নির্মিত হলে দু’পারের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিসহ এলাকার আমূল পরিবর্তণ ঘটবে, কমবে কয়েকটি গ্রামের দূরত্ব। ব্রিজ কেন্দ্রিক বাড়বে ব্যবসা বাণিজ্য উন্নয়ন হবে যোগাযোগ ব্যবস্থার।২০১৬ সালের ৭ মার্চ বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা রাস্তায় সাঙ্গু নদীর উপর ২শ’ ২০মিটার পিসি গার্ডার ব্রিজের কার্যাদেশ পায় শেখ হেমায়ত আলী এন্ড ইউ টি মং (জেভি) প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন গার্ডার ব্রিজটির বরাদ্ধ ধরা হয়েছিল ১২ কোটি ৬১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। কার্যদেশ অনুযায়ী দেড় বছরের মধ্যেই ব্রিজ নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। অথচ সাড়ে তিন বছর পার হয়ে গেলেও এলজিইডি কর্তৃপক্ষ ও ঠিকাদারের উদাসীনতায় ব্রিজের অর্ধেক কাজও শেষ করা হয়নি। এদিকে সম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার আরও ছয় মাস সময় চেয়েছে।(((তথ্য সুত্রঃ-সিএইচটি টুডে.কম)))

ট্যাগ :

আরো সংবাদ



আর্কাইভ
মে ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১