আজকে ১৯ মার্চ, ২০১৯ | | সময়ঃ-০৬:৩০ পূর্বাহ্ন    

Home » অর্থনীতি » আমিরাতের সঙ্গে বিনিয়োগের নতুন দ্বার উন্মোচন

আমিরাতের সঙ্গে বিনিয়োগের নতুন দ্বার উন্মোচন

নিউজ ডেস্কঃ- সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল জনরায় নিয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার। টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হবার পর গত ১৪ই ফেব্রুয়ারি প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে জার্মানি যান শেখ হাসিনা, জার্মান সফর শেষে ১৭ই ফেব্রুয়ারি রোববার সকালে মিউনিখ থেকে আবুধাবি পৌঁছান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবুধাবি সফরের প্রথম দিনে দুই দেশের মধ্যে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে চারটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। সমঝোতা স্মারক সই ছাড়াও ব্যবসা-বিনিয়োগসহ বিভিন্ন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর এ সফরের মধ্যে দিয়ে আবুধাবি ও বাংলাদেশের মধ্যে ব্যবসা ও বিনিয়োগের নতুন দুয়ার খুলতে যাচ্ছে বলে আশা করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
চারটি সমঝোতা স্মারকের মধ্যে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সেক্টরে বিনিয়োগ বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে সই করেন- বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট(পিডিবি) বোর্ডের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, দুবাই রয়েল পরিবারের সদস্য শেখ আহমেদ ডালমুক আল মাকতুম। এর আওতায় দুই ধাপে ৮০০ থেকে ১০০০ মেগাওয়াটের এলএনজি বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণ এবং ১০০ মেগাওয়াটের আরেকটি সৌর বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণের কথা বলা হয়েছে।
মাতারবাড়িতে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়ন, দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধি বিষয়ক সমঝোতা স্মারকে সই করেছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান ও শেখ আহমেদ ডালমুখ আল মাখতুম। মাতারবাড়িতে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার জন্য সেখানে ৩০০ একর জমি বরাদ্দের কথা বলা হয়েছে।
বন্দর উন্নয়ন, মুক্ত অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং রেল, বিদ্যুৎ-জ্বালানি, পর্যটনসহ আরও কয়েকটি সেক্টর সহযোগিতায় বাংলাদেশের পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ অথরিটি ও দুবাই সরকারের মধ্যে সমঝোতা স্মারকে সই করেন শিপিং মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুস সামাদ ও ডিপি ওয়ার্ল্ডয়ের চেয়ারম্যান সুলতান আহমদ বিন সোলাইয়েম।
এমিরেটস ন্যাশনাল ওয়েল কোম্পানি লিমিটেডের (ইএনওসি) সঙ্গে সমঝোতা স্মারকে সই করেন বিদ্যুৎ-জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এবং ইএনওসি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফ আল ফালাসি। এই চুক্তির মূল এজেন্ডা হলো হলো বাংলাদেশে দীর্ঘমেয়াদে এলএনজি সরবরাহ। পায়রাতে ভূমিভিত্তিক এলএনজি রিসিভিং সেন্টার করা। সেজন্য পায়রাতে ৩০০ একর জমি বরাদ্দের আবেদন জানানো হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সেদেশের অর্থমন্ত্রী সুলতান আল মানসুরীর নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলের কথা তুলে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক বলেন, বাংলাদেশে তারা নতুনভাবে ব্যবসা বাড়াতে চান। বিশেষ করে বিনিয়োগ করতে চান। সেটা হলো এনার্জি, পোর্ট, আর হলো ইন্ডাস্ট্রিয়াল জোন। প্রধানমন্ত্রী তাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।
এলএনজি এবং ল্যান্ড বেইজ এলএনজির বড় একটা বিনিয়োগ বাংলাদেশে আসবে আশা প্রকাশ করেন পররাষ্ট্র সচিব। তিনি বলেন, ৮০০ থেকে ১০০০ এলএনজি বেইজড দু’টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, ১০০ মেগাওয়াট সোলার পাওয়ার প্রজেক্ট করতে তারা আগ্রহ প্রকাশ করেছে।
রাষ্ট্রদূত মোহম্মদ ইমরান বলেন, আবুধাবি সরকার অতীতের চেয়ে বর্তমানে অনেক বেশি আন্তরিক। এতদিন আমরা এগিয়ে গেছি। এখন মনে হচ্ছে বিনিয়োগ করার জন্য তারা এগিয়ে আসছে। তারা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করেছে।
প্রধানমন্ত্রীর সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও আবুধাবির মধ্যে সম্পর্ক ও সহযোগিতা বৃদ্ধির সঙ্গে বিনিয়োগ ও ব্যবসার নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন সংশ্লিষ্টরা।

About admin

মতামত